অখণ্ড ভারতের দাবিদার রমেশ ও মধু : নেপথ্যে বিএনপি

1842

।।দেশরিভিউ, নিউজরুম।। সম্প্রতি বাংলাদেশকে যুক্ত করে অখন্ড ভারত কায়েমের দাবি নিয়ে দুটি ভিডিও প্রচারিত হতে দেখা গেছে। শ্যামলি পরিবহনের মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে তার পরিবহনও বয়কটের ডাক দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে বিএনপি ও জামায়াত শিবিরের নেতাকর্মীরা ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েছে।

কিন্তু অনুসন্ধানে জানা গেছে, পুরো পরিকল্পনার নেপথ্যে রয়েছে বিএনপির কয়েকজন নেতা। ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলার আসামির মালিকানাধীন হানিফ পরিবহনকে সুবিধা দেয়ার জন্যও একটি চক্র কাজ করেছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে। কয়েকটি গোয়েন্দা সূত্র এ বিষয়ে দেশরিভিউকেও নিশ্চিত করেছে।

অনুসন্ধানে জানা যায় শ্যামলি পরিবহনের মালিক দাবি করা ব্যক্তির নাম রমেশ দত্ত। রমেশ দত্তের সঙ্গে উপস্থিতদের মধ্যে অন্যতম হলেন চট্টগ্রামের সঞ্জয় ধর, চন্দন দাশ, বিপ্লব চৌধুরী ও মিঠু ধর।

অপর ভিডিওতে দ্বৈত নাগরিকত্ব ও অখন্ড ভারতের কথা যিনি বলছেন সেই বক্তার নাম দেবাশীষ রায় মধু।
মধুর সঙ্গে উপস্থাত ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন রাজীব ধর তমাল ও অসীম বণিক।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের রাজনৈতিক পরিচয় হচ্ছে, রমেশ দত্ত ও দেবাশীষ রায় মধু মিঠু দুজনই বিএনপির কেন্দ্রীয় পর্যায়ের নেতাদের সাথে উঠাবসা। এমন কিছু ছবিও ইতিমধ্যে প্রকাশ পেয়েছে। এছাড়া উপস্থিত উল্লেখিত ব্যক্তিদের বেশিরভাগ জাতীয়তাবাদী হিন্দু ছাত্র জোটের সঙ্গে জড়িত।

জানা গেছে এ ভিডিও দুটি গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও নিপুন রায়ের সরাসরি সম্পৃক্ততায় ও বিএনপি নেতা রিপন দে’র তত্ত্বাবধানে ইস্যু তৈরির জন্য পরিকল্পিতভাবে ধারণ ও প্রচার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট গোয়েন্দা তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন প্রশাসনের শীর্ষ এক কর্মকর্তা।

SHARE