অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ বই লিখে ‘বিতর্কে’ সালমান মুক্তাদির

320


।।দেশরিভিউ সংবাদ।।

আলোচিত সমালোচিত ইউটিউবার সালমান মুক্তা‌দির। বাংলাদেশের ইউটিউবার হিসেবে তার নাম‌টি চলে আসে শুরুর দিকেই। কখনো বিত‌র্কিত ভি‌ডিও নির্মাণ ক‌রে, কখনো নিজের ব্য‌ক্তি জীবনের প্রেম নিয়ে বারবার আ‌লো‌চনায় এসেছেন আবার সমালোচনায়ও শিরোনাম হয়েছেন।

কখনো গান গেয়েছেন, কখনো নাটকেও অ‌ভিনয় করেছেন সালমান। তবে এবার তিনি আত্মপ্রকাশ হয়েছেন লেখক হিসেবে। তাও আবার অমর একুশে বইমেলায়। তবে এই আত্মপ্রকাশটি সমালোচনার নতুন মাত্রা যোগ করেছে সালমানের জীবনে। পশ্চিমা সংস্কৃতি চর্চার উপর নিজের চিন্তা, ভাবনা, পরিকল্পনা এবং তার বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করা বিভিন্ন জনের কমেন্টসকে সাজিয়ে বইটি লেখা হয়েছে। তবে বইটির ভাষা ও বিষয়বস্তু অতি কুরুচিপূর্ন হওয়াতে ইতিমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র তোপের মুখে পড়েছে সালমান।

গত ২ ফেব্রুয়া‌রি থেকে শুরু হওয়া অমর একুশে বইমেলাতে সালমানের প্রথম বই ‘বিহাইন্ড দ্য সিন’ প্রকাশ করছে অধ্যায়ন প্রকাশনী। বইমেলার ১৭ নম্বর প্যাভিলিয়নে প্রতিদিন উপস্থিত থেকে সালমান তার বই বিক্রি করছেন। অনেক টিনএজার ছেলে মেয়েকে শুধুমাত্র সেলফি তোলার লোভে অশ্লীল ভাষায় লেখা বইটি কিনতে দেখা গেছে।

অশ্লীল বইটি নিয়ে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে প্রচুর প্রতিবাদ দেখা গেছে। একটি স্ট্যাটাস অনেকেই নিজেদের ফেসবুকে দিতে যাচ্ছে। ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া সে স্ট্যাটাসে লিখা “পথভ্রষ্ট নতুন প্রজন্ম যখন শুধু মাত্র একটা সেলফি তোলার জন্য সালমান মুক্তাদিরের বই কিনছিলো – পাশেই হুমায়ূন আহমেদ স্যারের বই ছিলো, আনিসুজ্জামান স্যারের বই ছিলো! এখানে আমি ইউটিউবার সালমানের কোন দোষ দেখছি না। শুধুমাত্র ব্যবসায়িক ফায়দা লুটতে যেসব প্রকাশনা এরকম মানহীন অখাদ্য নতুন প্রজন্মের হাতে তুলে দিচ্ছে তাদের প্রকাশনা বাতিল সময়ের দাবী। না’হলে বাংলা সাহিত্যের মৃত্যু হবে শিঘ্রই। স্কুল, কলেজের ছেলে মেয়েদের ভালো, মন্দ বোঝার বয়স হয়নি। তাই আমি ওদেরকেও দোষ দিতে নারাজ।”

রায়হান উদ্দিন নামে একজন লিখেছেন, যে প্রকাশক এই ছেলের বই ছেপেছে ঐ প্রকাশককে মেলা থেকে পিটিয়ে পুলিশে দেয়া উচিত।

বিতর্কের মুখে পড়া বইটির কিছু অংশবিশেষ

সালমান মুক্তাদির বলেন, আমি লেখক নই, আর লেখক হিসেবে নিজেকে দাবীও করতে চাই না। নিজের ভালো লাগা থেকে চারপাশে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বইটি লিখেছি। আমি যা এবং যেভাবে কথা বলতে পছন্দ করি ঠিক সেভাবেই বইটি লেখা। আমার এই বইটি নিয়ে মানুষের মধ্যে এত আগ্রহ বইমেলায় না আসলে বুঝতেই পারতাম না। সবার প্রতি আমার অনেক ভালোবাসা রইলো।

SHARE