আরাফাতের ময়দানে জড়ো হয়েছেন লাখ লাখ মুসল্লি

24

আজ পবিত্র হজ। এতে অংশ নিতে আরাফাতের ময়দানে জড়ো হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ২০ লাখেরও বেশি মুসলমান। আর কিছুক্ষণ পরই স্থানীয় সময় দুপুরে হজের খুৎবা পাঠ শুরু হবে। খুৎবা শেষে মুসল্লিরা মুজদাফিলায় যাবেন শয়তানকে নিক্ষেপের জন্য পাথর সংগ্রহ করতে। হজের সব আনুষ্ঠানিকতা নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করতে ব্যাপক নিরাপত্তা নিয়েছে সৌদি সরকার।

‘লাব্বায়েক আল্লাহুম্মা লাব্বায়েক’ হে আল্লাহ আমি হাজির, আমি হাজির ধ্বনিতে প্রকম্পিত পুরো এলাকা। প্রিয় সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ তায়ালার কাছে নিজেকে সপে দিতে আরাফাতের ময়দানে জড়ো হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে যাওয়া লাখ লাখ মুসল্লি।

দশম হিজরি অর্থাৎ ৬৩২ খ্রিস্টাব্দে পবিত্র আরাফাতের ময়দানে জাবালে রহমতে দাঁড়িয়ে বিদায় হজের ভাষণ দেন, মুসলমানদের সর্বশেষ নবী হজরত মুহাম্মদ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। এরপর থেকে সারা বিশ্বের ধর্মপ্রাণ মানুষ প্রতিবছর ৯ জিলহজ আরাফাতের ময়দানে হজে অংশ নিয়ে আসছেন। স্থানীয় সময় দুপুরের দিকে হজের খুৎবা পাঠ করবেন মক্কার মসজিদ আল হারামের খতিব।

আরাফাতের ময়দানে হজের মূল কর্মসূচি সেরে বিকেলে জোহর ও আসরের নামাজ আদায় শেষে মুজদালিফায় যাবেন হাজিরা। শয়তানকে নিক্ষেপের জন্য পাথর সংগ্রহ করে সেখানেই সারা রাত খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করে তারা আল্লাহর নৈকট্য লাভের আশায় ইবাদত-বন্দেগি করবেন।

১০ জিলহজ ফজরের নামাজ আদায় করে মুজদালিফা থেকে মিনায় ফিরবেন হাজিরা। সেখানে জামারায় শয়তানকে পাথর নিক্ষেপ, পশু কোরবানি ও মাথা মুণ্ডানোর পর ইহরাম ত্যাগ করবেন মসুল্লিরা। পরে মিনা থেকে মক্কায় গিয়ে পবিত্র কাবা শরিফ তাওয়াফের মধ্যদিয়ে হজের কর্মসূচি সম্পন্ন করবেন হাজিরা।

এবছর নির্বিঘ্নে পবিত্র হজের কর্মসূচি সম্পন্ন করতে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে সৌদি সরকার। বাংলাদেশ থেকে হজ পালনে এবছর ১ লাখ ২৭ হাজারের বেশি মুসল্লি সৌদি আরবে গেছেন।

দেশরিভিউ/এস এস

SHARE