ইউএস ওপেনের নতুন রানী জাপানের ওসাকা

10

২৩তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী সেরেনা উইলিয়ামসকে সরাসরি সেটে হারিয়ে প্রথমবারের মতো কোন গ্র্যান্ড স্ল্যামের ফাইনালে উঠেই ইতিহাস গড়লেন জাপানি নাওমি ওসাকা।  ২০ বছর বয়সী এ জাপানি টেনিস তারকা রোববার ইউএস ওপেনের ফাইনালে সেরেনা উইলিয়ামসকে সরাসরি সেটে হারিয়ে চমক দেন।

নিউইয়র্কে বছরের শেষ গ্র্যান্ড স্ল্যামের ফাইনালে সেরেনা হেরেছেন ৬-২ ও ৬-৪ সেটে। এজন্য অবশ্য দায়ী যুক্তরাষ্ট্রের উইলিয়ামস পরিবারের ছোট মেয়ে। কেননা ম্যাচ চলাকালিন চেয়ার আম্পায়ার কার্লোস র‍্যামোসকে লক্ষ্য করে সেরেনার কোচ প্যাট্রিক মৌরেতাগলৌ ইশারার মাধ্যমে তাকে পরামর্শ দেন। তখন আম্পায়ার, সেরেনাকে বলেন এটা ‘প্রতারণা’। তীব্রভাবে এর বিরোধিতা করেন সাবেক এক নম্বর তারকা। সে সময় তিনি বলেন, জেতার জন্য জীবনে কখনো তাকে প্রতারণার সাহায্য নিতে হয়নি।

ম্যাচ চলাকালিন এক পর্যায়ে নিজের ওপর বিরক্ত হয়ে পড়েন সেরেনা। সে সময় কোর্টেই র‌্যাকেট ভেঙে ফেলেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে তাকে শাস্তি হিসেবে আম্পায়ার এক পয়েন্ট পেনাল্টি দেন ওসাকাকে। ক্ষোভে ফেটে পড়ে সেরেনা। বলেন, ‘আপনি আমাকে প্রতারক বলেছেন, আপনার আমার কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত। আপনি আর কোনোদিন আমার ম্যাচে আম্পায়ারের চেয়ারে বসতে পারবেন না’। বাগবিতন্ডা এতই তীব্র হয়ে ওঠে যে একসময় আম্পায়ারকে তিনি বলেন, ‘আপনি চোর, আপনি আমার পয়েন্ট চুরি করেছেন।’

সেরেনার আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে এক পর্যায়ে আম্পায়ার একটি গেম ওসাকাকে দিয়ে দেন। তাতে আরও ভেঙে পড়ে সেরেনা। এ ঘটনার পর তিনি বলেন, ‘অনেক পুরুষ খেলোয়াড় এমন নানা কথা আম্পায়ারদের বলেন, কিন্তু সেজন্য তাদের কোনো শাস্তি পেতে হয় না। মহিলা বলেই আমাকে এই শাস্তি পেতে হল।’ এর কিছুক্ষণ পরেই ম্যাচ জিতে যান ওসাকা। এজন্য অবশ্য বিশ্বের সাবেক এক নম্বর টেনিস তারকা তাকে অভিনন্দন জানিয়েছে বলেছেন, ‘ সে ভালো খেলেছে, তাকে তার প্রাপ্য মর্যাদা দেয়া উচিত।’

ইউএস ওপেনের শিরোপা নাওমি জিতলেও পুরো ম্যাচে দর্শকদের সমর্থন ছিল সেরেনার দিকেই। ম্যাচ শেষে এ ব্যাপারে নাওমি বলেন, ‘আমি জানি যে সবাই তার জন্যই গলা ফাটাচ্ছিলেন। আমি দুঃখিত যে আপনাদের মনের ইচ্ছে মতো ম্যাচটি শেষ হয়নি। আমি শুধু আপনাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই যে আপনারা ম্যাচটি দেখতে এসেছেন।’

দেশরিভিউ/এস এস

SHARE