উপহার নয়, কেজি ১২০০ রুপি দামে ইলিশ বিক্রি ভারতে

754

।।দেশরিভিউ নিউজ।।

ইলিশ নিয়ে গুজব রটেছে বাংলাদেশে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক সহ অখ্যাত অনলাইন পত্রিকায় বলা হচ্ছে, ভারতকে ৫০০ টন ইলিশ মাছ উপহার দেয়া হচ্ছে বাংলাদেশ থেকে।

অথচ বাংলাদেশ ফিশ এক্সপোর্টার্স এন্ড এসোসিয়েশন জানিয়েছে, বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের অনুরোধেই ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে ১০ অক্টোবর পর্যন্ত ভারতে ইলিশ রপ্তানির একটি সুযোগ দিয়েছে সরকার। কেজি প্রতি ১২০০ রুপি করে ৫০০ টন ইলিশ বিক্রি হবে এই ১২দিনে।

বাংলাদেশ ফিশ এক্সপোর্টার্স এর এসোসিয়েশন সেক্রেটারি কাজী আবদুল মান্নান দেশরিভিউকে এ বিষয়ে বলেন, এ বছর ভারতে ইলিশ ধরা পড়েছে কম। আসন্ন দূর্গাপূজায় ভারতে প্রচুর ইলিশের চাহিদা রয়েছে। তাই এই ১২ দিনে ৫০০ টন ইলিশ রপ্তানীর জন্য সরকার থেকে অনুমতি নিয়েছি বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা পশ্চিমবঙ্গের বাজারে গিয়ে ইলিশ বিক্রি করবে। প্রতি কেজির ইলিশের দাম বাংলাদেশ পাবে ১২০০ রুপি। বাংলাদেশের বাজারে এই ইলিশের বর্তমান দাম এখন ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা। সে হিসাবে আমরা লাভবান হবো, আয় হবে প্রায় ২৮ কোটি রুপি।

ইলিশে গুজবের বিষ ছড়ান ড. আসিফ নজরুল

গত ২৬ সেপ্টেম্বর ড. আসিফ নজরুল ফেসবুকে ইলিশ নিয়ে প্রথম গুজব ছড়িয়েছেন অভিযোগ উঠেছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল গত ২৬ সেপ্টেম্বর নিজের ফেসবুক পেইজে সর্বপ্রথম ইলিশ নিয়ে গুজব রটিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

নিজের ফেসবুকে আসিফ নজরুল লিখেছিলেন “৫০০ মেট্রিক টন ইলিশ! বিপুল পরিমাণে ইলিশ ভারতে রপ্তানী করে তাদের কেন খুশী করা হচ্ছে?”

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশেই ২০১২ সাল থেকে ভারতে ইলিশ রপ্তানী বন্ধ রেখেছে বাংলাদেশ। উদ্দেশ্য ছিলো, আগে দেশের চাহিদা মেটানো। গত ৭ বছর কঠোর নজারদারীতে ইলিশের প্রজনন মৌসুমে মাছ শিকার বন্ধ রেখে ধীরে ধীরে ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধি করা হয়েছে। ফলে প্রতিবছরই দেশে ইলিশ মাছের উৎপাদন বেড়েছে। মৎস অধিদপ্তরের হিসেব মতে ২০১২ সালে দেশে ইলিশ উৎপাদন হয়েছিলো আড়াই লাখ টন। ২০১৯ সালে ইলিশের উৎপাদন ৫ কোটি টন ছাড়িয়ে গেছে।

SHARE