এনার নখরায় মশগুল সাইবারবাসী

43

এনা সাহা। টলিউড ইন্ডাস্ট্রির এমন এক অভিনেত্রী যাঁর মধ্যে দুষ্টু-মিষ্টি ফিচারস একেবারে সামনভাবে ভরপুর৷ কোনটাই এক চিলতে কম বা বেশি নয়৷ সবটাই একরকম এনার সৌন্দর্যে৷ সেটাই অভিনেত্রী আবারও প্রমাণ করে দিলেন তাঁর এই নতুন ভিডিওয়ে৷

ডিজিটাল দুনিয়ায় এখন সকলে ভাইরাল৷ শুধু হাটকে কোনও একটি পোস্ট৷ ব্যস! নিমেষের মধ্যে ভাইরাল আপনিও৷ তবে এনা সেরকম তালিকায় নাম লেখাননি৷ যা তা পোস্ট নয়৷ বেশ বোল্ড ছবি, কিংবা চোখ ধাঁধানো ভিডিও পোস্ট করেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেয়ে যান এনা৷

সম্প্রতি একটি ভিভিও অ্যাপ প্রথমবার ব্যবহার করলেন এনা৷ সেই ভিডিওই পোস্ট করে ফের শিরোনামে উঠে এলো তাঁর নাম৷ মিউজিকালি অ্যাপটির নাম কমবেশি সকলেই শুনে থাকবেন৷ এই অ্যাপের মাধ্যমেই বহু সাইবার ইউজাররা জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন৷

কোনও গান কিংবা ছবির ডায়লগ সবরকমই থাকে এই অ্যাপে৷ ইউজার ইচ্ছেমতো গান বা ডায়লগ সিলেক্ট করে নিজের মতো ভিডিও বানাতে পারে৷ সেই অ্যাপলিকেশনটাই প্রথমবার ব্যবহার করেই বেজায় খুশি অভিনেত্রী৷ ‘বীরে দি ওয়েডিং’ ছবির ‘তারিফা’ গানটিতে ভিডিও করেছেন এনা৷ সেই গানে তাঁর এক্সপ্রেশন থেকে ঘায়েল হয়েছে অসংখ্য যুবকের মন৷

এই ভিডিওই এখন সোশ্যাল সাইটের ফিডে ঘুরে ফিরে বেড়াচ্ছে৷ এছাড়াও নানা রকমের পোস্টে প্রায় ভাইরাল হয়ে ওঠেন এনা৷ কখনও ফোটোশ্যুটের, তো কখনও নো মেক আপ লুকের৷ তো আবার কখনও ওয়ার্ক আউটের৷ তবে রোজ ইদানিং সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে খানিক কম সক্রিয় তিনি৷ আসলে সম্প্রতি এনা ব্যস্ত তাঁর আপকামিং প্রজেক্টগুলি নিয়ে৷ ‘ভূত চতুর্দশী’ ছবিতে মুখ্য অভিনয় অভিনয় করতে চলেছেন তিনি৷ ছবিতে অন্যরকম ভূমিকায় দেখা যাবে এনাকে৷

যারা ভাবেন বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে ভালো ভূতের ছবি, ধারাবাহিক তৈরি হয় না৷ এই ধারণাকে একেবারে ধুয়ে মুছে সাফ করা সম্ভব নয়৷ তবে সেই অসম্ভবকেই সম্ভব করতে ‘ভূত চতুর্দশী’ নিয়ে ময়দানে নামছেন মৈনাক ভৌমিক৷ ছবিতে ডেবিউ পরিচালক সাব্বির মালিকের সঙ্গে থাকছে আরও চমক৷ ছবির কলম ধরেছেন মৈনাক ভৌমিক৷ জেন ওয়াইয়ের তারকাদের নিয়েই তৈরি হচ্ছে এই ছবি৷ এনা সাহার পাশাপাশি রয়েছেন আরিয়ান ভৌমিক মতো অভিনেতা৷ এছাড়াও মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করবেন ভিডিও জকি দীপ্সিতা মিত্র এবং সৌমেন্দ্র ভট্টাচার্য৷

ছবিতে চারজনই কলেজে পড়ুয়া৷ ভূত নিয়ে সবারই মনের কোনায় একটা উত্তেজনা কাজ করে৷ একই রকমভাবে এই চারটি ছেলেমেয়েও ভূত চতুদর্শী নিয়ে গবেষণা শুরু করে৷ সবাই মিলে ঠিক করে ফেলে বানাব ডকুমেন্টারি৷ স্বাবাবিকভাবেই কুখ্যাত ভূতুরে লোকেশনে শ্যুট করতে পৌঁছয় ওরা৷ পরিত্যক্ত একটি জায়গায় গিয়ে শ্যুট শুরু করতেই মাথাচারা দেয় নানা সমস্যার৷

শ্যুট করার কিছু পরেই শুরু হয় অলৌকিক কান্ডকারখানা৷ ডকুমেন্টারি শ্যুট করতে গিয়ে অলৌকিক ঘটনা, ভূতুরে জায়গায় ঘুরতে গিয়ে ভূতের খপ্পরে পড়া৷ এসব হলিউড বলিউডে দর্শকরা দেখে এসেছেন৷ একই ধারার ছবি নিয়ে পরিচালক সাব্বির আসছেন ঠিকই তবে নিজের কায়দায়৷ দর্শকদের অন্যধারার ভৌতিক ছবি উপহার দেওয়ার প্রস্তুতিতে রয়েছেন সাব্বির৷ তিনি এক নতুন প্রজন্মের শিল্পী৷ এর আগে মৈনাকের বেশ কয়েকটি ছবিতে অ্যাসিসট্যান্ট হিসেবেও কাজ করেছেন৷

দেশরিভিউ/এস এস