এবার জেলে যাবেন রাজপাল যাদব

23

প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত হলেন বলিউডের জনপ্রিয় কমেডি অভিনেতা রাজপাল যাদব ।

২০১০ সালে নিজেদের প্রতিষ্ঠান শ্রী নওরাং গোদভারি এন্টারটেইনমেন্টের নামে  একটি ছবি পরিচালনার জন্য দিল্লির ব্যবসায়ী রাজীব শর্মার কাছ থেকে  পাঁচ কোটি টাকা ঋণ নিয়েছিলেন বলিউডের এই কমেডি অভিনেতা রাজপাল যাদব ও তার স্ত্রী রাধা। শর্ত ছিল, ছবি মুক্তি পর সুদসহ টাকা ফেরত দেবেন। কিন্তু শর্ত পূরণ করেননি অভিনেতা রাজপাল যাদব । টাকা পাননি রাজিব পাল। অবশেষে আইনের আশ্রয় নেন তিনি।

ঐ একি বছরে ব্যবসায়ী রাজিব পাল অভিনেতা রাজপাল যাদব ও তার স্ত্রীকে আসামি করে একটি প্রতারণার মামলা করেন । দীর্ঘ আট বছর পর, শনিবার দিল্লির অতিরিক্ত মুখ্য মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট অমিত আরোরার আদালতে সেই প্রতারণার মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন রাজপাল যাদব ও তার স্ত্রী রাধা। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিভিন্ন সময়ে তারা ভুয়া কাগজপত্র দেখিয়েছেন এবং বারবার সমন পাওয়া স্বত্ত্বেও আদালতে হাজিরা দেননি। আগামী ২৩ এপ্রিল তাদের সাজা ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছে আদালত।

মামলার অভিযোগ পত্রে বলা হয়, ”পাঁচ কোটি টাকা ঋণ নেয়ার বিপরীতে ২০১২ সালের ৮ আগস্টের চুক্তি অনুযায়ী ব্যবসায়ী রাজিব পালকে সুদ-আসলসহ মোট ১১ কোটি ১০ লাখ ৬০ হাজার ৩৫০ টাকা দিতে সম্মত হয়েছিলেন রাজপাল। পরে বিষয়টি নিয়ে দুপক্ষ দ্বন্দ্বে জড়ালে বিষয়টি হাইকোর্টে গড়ায়। সেখানে রাজপাল সাত কোটি টাকা পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেন।

পরে এই টাকা পরিশোধের জন্য অভিনেতা রাজপালের পক্ষ থেকে সাতটি চেক ইস্যু করা হয়। কিন্তু অপর্যাপ্ত তহবিলের কারণে সবগুলো চেকই প্রত্যাখ্যাত হয়। এরপর আবারও আদালতের শরনাপন্ন হন ব্যবসায়ী রাজিব পাল।

এদিকে অভিনেতা রাজপাল যাদব দাবি করছেন, ”রাজিব পাল  ঐ টাকা তিনি ঋণ হিসেবে দেননি, বরং সেটি বিনিয়োগ করেছিল।”

দেশরিভিউ /আরিফুল ইসলাম

SHARE