কঠোর নজরদারিতে শুরু এইচএসসি পরীক্ষা

2

কঠোর নজরদারির মধ্যে সারাদেশে শুরু হয়েছে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। সোমবার সকাল ১০টায় এই পরীক্ষা শুরু হয়। প্রথম দিন এইচএসসিতে বাংলা প্রথমপত্র, সহজ বাংলা প্রথমপত্র, বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি প্রথমপত্র এবং ডিআইসিএসে বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষা হচ্ছে। আর মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে আলিমে কোরআন মাজিদ বিষয়ের পরীক্ষা হচ্ছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আগেই জানানো হয়েছে, প্রশ্ন ফাঁস রোধে এবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ ২৮টি ইউনিট কাজ করছে। প্রশ্ন ফাঁসের তথ্য দিতে জরুরি সেবার ‘৯৯৯’ নম্বরে কল করা যাবে।

আর পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ গজের মধ্যে পরীক্ষার্থী ছাড়া জনসাধারণের প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

এছাড়া প্রশ্ন ফাঁস রোধে গত ২৯ মার্চ থেকে পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত সব ধরনের কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

আগামী ১৩ মে পর্যন্ত হবে এইচএসসির তত্ত্বীয় পরীক্ষা। সকালের পরীক্ষা ১০টা থেকে এবং বিকেলের পরীক্ষা হবে দুপুর দুইটা থেকে। ১৪ থেকে ২৩ মে’র মধ্যে ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

বেশ কয়েক বছর ধরে ১ এপ্রিল থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হলেও এবার এপ্রিলের প্রথম দিন ইস্টার সানডের বন্ধ থাকায় ২ এপ্রিল থেকে এই পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

চলতি বছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় মোট ১৩ লাখ ১১ হাজার ৪৫৭ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করার কথা। এর মধ্যে ছাত্র ৬ লাখ ৯২ হাজার ৭৩০ ছাত্র আর ৬ লাখ ১৮ হাজার ৭২৭ ছাত্রী।

২০১৭ সালে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১১ লাখ ৮৩ হাজার ৬৮৬ জন। ২০১৮ সালে সেই সংখ্যা ১ লাখ ২৭ হাজার ৭৭১ জন বৃদ্ধি পেয়েছে।

পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার হলে প্রবেশ করতে হবে। এবারও শুরুতে বহুনির্বাচনী (এমসিকিউ) অংশ এবং পরে রচনামূলক অংশের পরীক্ষা হবে। ৩০ নম্বরের বহুনির্বাচনী পরীক্ষার সময় ৩০ মিনিট এবং ৭০ নম্বরের সৃজনশীল পরীক্ষার সময় আড়াই ঘণ্টা।

যেসব বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা রয়েছে, সেগুলোর ২৫ নম্বরের বহুনির্বাচনী পরীক্ষার সময় ২৫ মিনিট এবং সৃজনশীল অংশের জন্য দুই ঘণ্টা ৩৫ মিনিট সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মোবাইল নম্বরে সেট কোড ব্যবহারের নির্দেশনার এমএমএস যাওয়ার পর প্রশ্নপত্রের প্যাকেট খুলতে হবে বলে নির্দেশনা রয়েছে।

কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছাড়া অন্য কেউ মোবাইল ফোন বা ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন না। কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছবি তোলা যায় না এমন মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন।

দেশরিভিউ/শিমুল

SHARE