করোনা মহামারীর মধ্যেও বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভে রেকর্ড

119

।। দেশরিভিউ, সংবাদ ।।

প্রথমবারের মত বাংলাদেশের বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভ ছাড়ালো ৩৪ বিলিয়ন ডলার। গতকাল বুধবার (৩ জুন) দিন শেষে রিজার্ভের পরিমাণ দাঁড়ায় তিন হাজার ৪২৩ কোটি মার্কিন ডলার। বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রাপ্ত তথ্য মতে, বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রিজার্ভ ছিল ২০১৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর, ৩৩ দশমিক ৬৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবেলায় আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ৭৩ কোটি ২০ লাখ ডলারের জরুরি সহায়তা রিজার্ভে যোগ হয়েছে। এছাড়া এডিবি ও অন্যান্য উন্নয়ন সহযোগীদের দেয়া ঋণ ও সহায়তা এক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে বলে সময় সংবাদকে জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক কাজী ছাইদুর রহমান।

তিনি বলেন, বিভিন্ন ব্যাংকের অর্থও জমা আছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে। এছাড়া করোনা পরিস্থিতিতে রপ্তানি কমে যাওয়া বৈদেশিক মুদ্রার মজুদ বাড়ার আরেকটি কারণ।

এদিকে চলতি মাসের প্রথম দুই দিনে ১৬ কোটি ৫০ লাখ ডলার রেমিটেন্স এসেছে। সামনের দিনগুলোতে রেমিটেন্স প্রবাহ এমন থাকলে করোনা মহামারিতেও এ মাসে এক বিলিয়নের বেশি প্রবাসীর আয় আসবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি। বর্তমানে মজুদ বিদেশি মুদ্রায় দেশের ৮ মাসের বেশি রপ্তানি আয় মেটানো যাবে।

চলতি অর্থবছরে ২ জুন পর্যন্ত প্রবাসী বাংলাদেশিরা ১৬ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলার রেমিটেন্স পাঠিয়েছেন। এই অংক গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে প্রায় ৯ শতাংশ বেশি। ঈদ উপলক্ষে গত মে মাসে প্রবাসীদের রেমিটেন্স প্রবাহ আগের মাসের তুলনায় বেশখানিকটা বেড়ে দেড় বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যায়। চলতি অর্থবছরের বাজেটে রেমিটেন্সে নগদ ২ শতাংশ প্রণোদনা দেয়ার পরই বাড়তে থাকে বৈধ পথে প্রবাসী আয়।

SHARE