করোনা রোগীদের জন্য রাষ্ট্রপতির সহধর্মিণীর ৬ বাক্স ফলমূল

236


।।দেশরিভিউ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি।।

চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পর চিকিৎসা খাতের বেসামাল পরিস্থিতি সামাল দিতে মাত্র ১০ দিনের প্রচেষ্টায় ‘করোনা আইসোলেশন সেন্টার চট্টগ্রাম’ গড়ে তুলেছেন একদল তরুণ-যুবক। নগরীর হালিশহরের প্রিন্স অব চিটাগং কমিউনিটি সেন্টারে অবস্থিত এই আইসোলেশন সেন্টারের উদ্যোক্তাদের মধ্যে কেউ শিক্ষার্থী, কেউ চাকুরিজীবি। আবার কেউ ছাত্রলীগের বর্তমান সাবেক নেতাকর্মী। নগরীর করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা দিয়ে অল্প দিনেই সুনাম অর্জন করা এই আইসোলশন সেন্টারটি বিত্তবান ও আগ্রহীদের সহযোগিতা নিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে গড়ে তোলা হয়েছে। এই আইসোলেশন সেন্টারে থাকা রোগীদের জন্য এবার ফলমূল পাঠিয়ে সবাইকে অবাক করে দিয়েছেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ এর সহধর্মিণী জনাবা রাশেদা খানম।

মহামান্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ সিদ্দিকী এবং সহধর্মিণী রাশেদা খানম। ফাইল ছবি

গিফট পেপার মোড়ানো ৬টি বিশাল আকারের বাক্সে করে আইসোলেশন সেন্টারে থাকা রোগীদের জন্য ৩ প্রজাতির আম, আপেল এবং মালটা উপহার পাঠিয়েছেন রাষ্ট্রপতির সহধর্মনী জনাবা রাশেদা খানম। বাক্সে চল্লিশ কেজি আম, ২০ কেজি আপেল এবং ২০ কেজি মাল্টা রয়েছে বলে জানান আইসোলেশন সেন্টারের উদ্যোক্তা নূরুল আজিম রনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ‘করোনা আইসোলেশন সেন্টার চট্টগ্রাম’ এর উদ্যোক্তা এবং ছাত্রলীগ নেতা গোলাম সামদানী জনি দেশরিভিউকে বলেন, রবিবার দুপুরে প্রশাসনের এক ব্যক্তি গিফট পেপার মোড়ানো ৬টি বিশাল আকারের বাক্স আইসোলেশন সেন্টারে নিয়ে আসেন। এসময় তিনি রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ সিদ্দিকীর সহধর্মিণী জনাবা রাশেদা খানম এই উপহার পাঠিয়েছেন বলে জানান। আমরা বাক্স খুলে ফলমুল গুলো পেয়েছি। আমরা ভীষন আনন্দিত।

রাষ্ট্রপতির সহধর্মিণীর পাঠানো ফলমূল গ্রহন করার সময় আরো উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির উদ্যোক্তা সাজ্জাদ হোসেন, নাজিম উদ্দিন মাহমুদ শিমুল ও জিনাত সোহানা চৌধুরী।

SHARE