কাউন্সিলরদের বিবৃতির জবাবে মহিউদ্দিন বাচ্চু: প্রতিবাদ করতে ব্যবসায়ী হতে হবে?

899


।।দেশরিভিউ চট্টগ্রাম।।
চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি সম্মেলনের মঞ্চ থেকে চট্টগ্রাম নগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হাসিনা মহিউদ্দিনকে নামিয়ে দিয়েছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সভার সঞ্চালক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

এ ঘটনায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলারদের পাঠানো বিবৃতিতে সেদিনের ঘটনাকে ‘বিলবোর্ড ব্যবসায়ীদের ষড়যন্ত্র’ উল্লেখ করার জবাবে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের আহবায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু  বলেন, আমি শুরুতেই বলতে চাই চাঁদাবাজির চেয়ে ব্যবসা ভালো। বিলবোর্ড উচ্ছেদের কারণে ক্ষোভ- বিক্ষোভের কথা বলা হচ্ছে। সাড়ে চার বছর আগের বিলবোর্ড উচ্ছেদ চলাকালীন সময়ের কথা নিশ্চয়ই আপনাদের মনে আছে, আপনারা রিপোর্টার হিসাবে আমাকে ফোন করে মন্তব্য চেয়েছিলেন সেই সময়ে আমি বলেছিলাম আমার কোন বিরূপ মন্তব্য নাই, মেয়র হিসেবে তিনি যা ভালো মনে করছেন বা উপযোগী মনে করছেন তিনি তা করতেই পারেন, এই ব্যাপারে আমি তাঁকে স্বাগত জানাই ।

গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে মহিউদ্দিন বাচ্চু বলেন, আজকে আবার সেই অতীত বিষয়ে উনি বা ওনাদের এমন মন্তব্য করা কি খুব জরুরি ছিল? প্রতিবাদ করতে ব্যবসায়ী হতে হবে ? শিষ্টাচার বিবর্জিত কোন কর্মের বিরুদ্ধে কথা বলতে বিলবোর্ড ব্যবসা বা অর্থ – বিত্তের প্রয়োজন হয় না আদর্শিক শক্তিই একজন রাজনৈতিক সংগঠনের কর্মীর কাছে বড় শক্তি । আর চট্টগ্রাম সহ সারা বাংলাদেশের মানুষ জানে শহর এলাকায় বিলবোর্ড ব্যবসা নিয়ন্ত্রিত হয় সিটি কর্পোরেশনের অধীনে, সেই হিসেবে বিলবোর্ড ব্যবসায়ীরা মাননীয় মেয়রের নিয়ন্ত্রণে থাকা বা যে কোন কাজে মেয়রের পক্ষে থাকাটাই স্বাভাবিক।

বিবৃতিতে যুবলীগের আহবায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু বলেন, চট্টগ্রাম শহরে এইটা এখন বাস্তবতা হাঁটার জায়গায় হয়েছে বসার স্থান, বসার জায়গায় হয়েছে দোকান। আবার সেই দোকানে হয়েছে নিজস্ব লোকের পুনর্বাসন ।

SHARE