কুড়িগ্রামে নাবিল পরিবহন থেকে অজ্ঞান অবস্থায় ব্যবসায়ী নজরুল উদ্ধার

    135

    ।।এজি লাভলু, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি।।

    কুড়িগ্রামের উলিপুরে চলন্ত বাস থেকে অজ্ঞান অবস্থায় এক ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল (১০ ডিসেম্বর) সকালে অচেতন অবস্থায় ওই ব্যবসায়ীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এদিকে বিকাল চারটা পর্যন্ত ওই ব্যবসায়ীর জ্ঞান ফেরেনি বলে হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে।

    পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী জেলার দূর্গাপুর থানার কয়ামাজামপুর এলাকার হারুন অর রশিদের পুত্র কাঁচামাল ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম (৪৫) ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা নাবিল পরিবহনে (গাড়ি নং-৬৭৮৮) চিলমারী আসার পথে অজ্ঞান পাটির খপ্পড়ে পড়ে সর্বশান্ত হয়।

    গাড়ির সুপারভাইজার রাজু মিয়া জানান, গাড়িটি রংপুর মডার্ন এলাকায় এলে ৭-৮ জন যাত্রী চড়ে বসেন। এরপর তারা লালমনিরহাট জেলার বড়বাড়ি নামকস্থানে এসে তিন জন নেমে যান। গাড়িটি কুড়িগ্রামে পৌছিলে অধিকাংশ যাত্রী সেখানেই নেমে যান। এ সময় সুপারভাইজার ও হেলপার ব্যবসায়ী নজরুল ইসলামকে অজ্ঞান অবস্থায় দেখতে পান। যাত্রীদের পরামর্শে তারা ৯৯৯ এ ফোন করেন। পরে গাড়িটি চিলমারীর উদ্দেশ্যে রওনা হলে চলন্ত অবস্থায় উলিপুরে পৌছা মাত্রই থানা পুলিশ ওই ব্যবসায়ীকে অজ্ঞান অবস্থায় গাড়ি থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। সেখানে সুপারভাইজার রাজু মিয়া ও হেলপার আবু তালেবের কাছে পুলিশ ঘটনার বর্ণনা শুনেন। উলিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওই ব্যবসায়ীকে দেখতে আসা উপজেলার বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের আব্দুল মালেক (৫৫) ও শাহজাহান মিয়া (৫০) জানান, নজরুল ইসলাম তাদের পূর্ব পরিচিত। তিনি চিলমারী ও উলিপুরে কাঁচামাল ও কাঁশিয়ার (ছন) ব্যবসা করত।

    উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ফকরুল আলম জানান, ওই ব্যক্তিকে পুলিশ অজ্ঞান অবস্থায় সকালে হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছেন। বিকাল চারটা পর্যন্ত তার জ্ঞান ফেরেনি। তিনি পুরোপুরি আশংকামুক্ত নন। আমরা আর কিছুক্ষণ পর্যবেক্ষন করে সিদ্ধান্ত নিব তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফাড করবো কি না। তিনি আরও বলেন, ধারনা করা হচ্ছে ওই ব্যক্তিকে অতিরিক্ত মাত্রায় অজানা বিষক্রিয়া (আননন পয়জন) খাওয়ানো হয়েছে।

    উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়জ্জেম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

    SHARE