কেন এই হামলা?

612

।।দেশরিভিউ।।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় দুই বাংলাদেশিসহ অন্তত ৪০ জন নিহত হয়েছে। আট বাংলাদেশিসহ অনেকে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। হামলাকারীদের একজন হামলার সময় ফেসবুক ও টুইটারে লাইভ করেছে। এরই মধ্যে তা ভাইরালও হয়েছে।

হামলাকারী তার নিজের পরিচয় দিয়েছে ২৮ বছর বয়সী এক শ্বেতাঙ্গ হিসেবে। নাম ব্রেনটন টারান্ট। হামলা শুরু করার আগে ফেসবুকে সে একটি ইশতেহারও লিখেছে। সেটি শুরু হয়েছে একটি কবিতা দিয়ে, যার শেষ লাইনটি এমন- ‘অমন শুভরাত্রিতে এতোটা নম্র হয়ো না’।

দীর্ঘ ইশতেহারে হামলাকারী ইউরোপীয় নাগরিকদের শ্রেষ্ঠত্বের কথা বলেছে এবং অ-ইউরোপীয়দের তাড়িয়ে দিতে বলেছে।

ফেসবুকে ব্রেনটনকে ‘তুমি কে?’ -এন প্রশ্নের জবাব নিজেই দিয়েছে। বলেছে, সে শ্বেতাঙ্গ। স্কুলে খুব সময়ই পাস করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েনি।‘অতি সম্প্রতি আমি কেবাব রিমুভালিস্টদের সঙ্গে খণ্ডকালীনভাবে কাজ করছি,’ লিখেছে ব্রেনটন।কেবাব রিমুভালিস্ট হলো এক ধরনের সংগঠন বা আন্দোলন, যাদের মূলকথা হলো- ‘ইউরোপ দখল করা থেকে ইসলামকে ঠেকাও’।‘কেন তুমি এই হামলা করেছ?’

ব্রেনটন লিখেছে, ‘প্রধানত দখলদারদের এটা দেখাতে যে, এই দেশ কখনও তাদের দেশ হবে না।’ এরপর সে আরও কারণের কথা লিখেছে, ‘ইবা আকারলান্দের জন্য প্রতিশোধ নিতে’।১২ বছর বয়সী ইবা ২০১৭ সালের এপ্রিলে সুইডেনের স্টকহোমে জঙ্গি হামলায় নিহত হয়। এই ইবাই তার ‘সহিংস হামলা’র প্রেরণা বলে সে উল্লেখ করেছে।ব্রেনটন বলেছে, তার হামলার আরও উদ্দেশ্য হলো, ইউরোপীয় ভূমি থেকে অভিবাসীদের সরাসরি কমিয়ে ফেলা। ‘দখলদারদের’ শারীরিক ভাবে সরিয়ে ফেলা।

SHARE