গুজব ছড়ালেই কঠোর ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

14

গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ‘গুজব বা মিথ্যা তথ্য একটি দিয়াশলাইয়ের মতো। দিয়াশলাই কাঠি যেমন মুহূর্তেই জ্বলে উঠে ও বিশাল অগ্নিকাণ্ড ছড়াতে পারে, তেমনি কোনও গুজব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে পারে।’

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজধানীর কাওরান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে ‘গুজব বিরোধী জনসচেতনতামূলক বিজ্ঞাপনের (টিভিসি)’ উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কিছু দিন আগে ছোট ছোট স্কুলের ছেলেমেয়েরা রাস্তায় নেমে এসেছিল। যদিও তারা একটা সঠিক কারণেই রাস্তায় নেমেছিল। কিন্তু সেটাকে গুজব রটিয়ে ভিন্ন খাতে নেওয়ার অপচেষ্টা আমরা দেখেছি।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘যারাই গুজব ছড়িয়ে দিচ্ছে ও চেষ্টা করছে তাদের আমরা চিহ্নিত করেছি। তাদের বিরুদ্ধে আমরা কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেবো।’
আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের পথে আমরা অনেক দূর এগিয়ে গেছি। শহর থেকে প্রত্যন্ত গ্রামের সবাই এখন ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। এর সুফলের সঙ্গে সঙ্গে সঙ্গে কুফল বা অপব্যবহারও করা হচ্ছে। অবাধ তথ্য প্রবাহের যুগে যোগাযোগ ব্যবস্থার ডিজিটালাইজেশন ফলে বিশ্বে অভূতপূর্ব তথ্য বিপ্লব সাধিত হয়েছে। এটি যেমন সমাজে তথ্যের গতিশীলতা তরান্বিত করেছে তেমনি মিথ্যা তথ্য স্থিতিশীলতার জন্য হুমকি হতে পারে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘তথ্য আমাদের অধিকার। সঠিক তথ্য সঠিকভাবে যাচাই না করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার বা আপলোড করা যাবে না। ইতোমধ্যে র‌্যাব সাইবার ক্রাইম সেল গঠন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে আমরা সাইবার অপরাধীদের ওপর নজর রাখছি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা দেখেছি জলদস্যু, বনদস্যু, জঙ্গি নির্মূলে র‌্যাবের ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়। র‌্যাব জনগণের একটা আস্থা অর্জন করেছে। গুজব প্রতিরোধেও র‌্যাব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আশা প্রকাশ করছি।’

অনুষ্ঠানে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, ‘এখন সবার হাতে হাতেই স্মার্টফোন। সোশ্যাল মিডিয়া এমন হয়ে গেছে, যে লেখাপড়া জানে না সেও এটা ব্যবহার করছে। গুজব ছড়িয়ে রামুতে ভয়াবহ ঘটনা ঘটানো হয়েছে, ছাত্র আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করা হয়েছে। সচেষ্ট না হলে সামাজিক মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে সমাজে শান্তিশৃঙ্খলা বিনষ্ট করে দিতে পারে।’

র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘ডিজিটাল বিপ্লবের আড়ালে একশ্রেণির বিকারগ্রস্ত, অসুস্থ মানুষ ইন্টারনেটে অপপ্রচার করছে। বিশেষ করে আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে বিশৃঙ্খলা করার জন্য একশ্রেণির মানুষ উঠেপড়ে লেগেছে। তারা মিথ্যা অপপ্রচার করে দেশবাসীকে বিভ্রান্ত করতে চাইছে। আমরা বিশ্বাস করি দেশবাসী এসব অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হবে না।’

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

SHARE