গোপন ক্যামরায় যেভাবে ধরা পড়লেন জামালপুরের ডিসি

639


।।দেশরিভিউ, জামালপুর।। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ৪ মিনিট ৫৭ সেকেন্ডের ভিডিওটিতে যে কক্ষটি দেখা যায় সেটি জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের অফিস কক্ষের ভেতরে। আয়তনে ছোট রুমটি তার মূল কক্ষের ভেতর চেয়ারের ঠিক ডান পাশে। ছোট এই কক্ষটিতে একটি ছোট খাট বসানো হয়েছে। কক্ষটিও বেশ পরিপাটি।

ভাইরাল হওয়া ভিডিও থেকে স্থিরচিত্র

জানা গেছে ছোট রুমটির বাইরে লাল সবুজ দুইটি বাতি আছে। জেলা প্রশাসক ভেতরে থাকলে লাল বাতি জ্বালিয়ে রাখতেন। আর ঠিক তখন বাইরে দাঁড় করিয়ে রাখতেন একজন পিয়ন; যার কাজ ছিলো ওই সময় রুমে যাতে কেউ ঢুকতে না পারেন তা পাহারা দেয়া। আর রুমের বাইরে সবুজ বাতি জ্বালিয়ে দিলেই কেবল ঐ রুমে কাউকে ঢুকতে দিতেন আদেশপ্রাপ্ত পিয়ন।

জেলা প্রশাসক অফিসের কয়েকজন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মকর্তা গণমাধ্যমের সাথে এ বিষয়ে কথা বলেন। তাদের বক্তব্যে জানা যায়, ভিডিওতে ধরা পড়া ওই নারীর সঙ্গে ডিসির সম্পর্ক এতটাই ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠে যে, একজন অফিস সহায়ক হলেও ঐ নারী খবরদারি চালাতো সবার সঙ্গে। তার ব্যবহারে অতিষ্ঠ হয়ে অফিসের কর্মীদের মধ্যে কেউ একজন রুমে গোপন ক্যামেরা সেট করেন যা জেলা প্রশাসক নিজেই জানতেন না। আর তাতেই ধরা পড়ে বিশ্রাম রুমে ডিসির আপত্তিকর ভিডিও।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানান, অফিস কক্ষের পাশের ওই রুমটিতে আগে বিশেষ মিটিং করতেন জেলা প্রশাসক। পরে ঐ কক্ষের সব টেবিল চেয়ার সরিয়ে সেখানে খাট বসানো হয় বিশ্রামের জন্য। ডিসির রুমে যাওয়ার জন্য দুইটি রাস্তা ছিল। যার একটি প্রবেশ পথ বন্ধ করে দেয়া হয়। অপর প্রবেশ পথের মুখে লাল সবুজ লাইট লাগানো হয়।

SHARE