নির্বাচনকে সামনে রেখে টার্গেট কিলিং ও চোরাগোপ্তা হামলা শুরু

51

জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একটি গোষ্টি স্বাধীনতা স্বপক্ষের বুদ্ধিজীবি, সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতাদের উপর চোরাগোপ্তা হামলা করে টার্গেট কিলিং এ অংশগ্রহন করছে বলে দেশের শীর্ষ স্থানীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলো নিশ্চিত করছে। সম্প্রতি কুমিল্লায় সাবেক এক ছাত্রলীগ নেতা হত্যার পর গতকাল রাতে নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইচাহাক হোসেনকে (৫৮) মুখোশধারী দুর্বৃত্তরা হত্যা করে। ঘচনার পরপরেই তাৎক্ষনিক তদন্তে নামা আইনশৃঙ্কলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে থাকা বিভিন্ন সংস্থার গোয়েন্দাদের বরাত দিয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে কয়েকটি সূত্র। 

সূত্রগুলো বলছে, দুটো ঘটনায় প্রাপ্ত তথ্য ও সূত্র ধরে আমরা নিশ্চিত হয়েছে যে, খুনিরা পরিকল্পনামাফিক দীর্ঘদিন ভিকটিমের গতিবিধি নজরদারী করে খুনের ঘটনা ঘটিয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে দেশ ও বিদেশের নানা গোষ্টি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী লোকদের হত্যা করে নানাভাবে মনোবলে নষ্ট করতে চাইছে । এই টার্গেটের প্রথমে যারা ছিলো তাদের এ বিষয়ে সতর্ক করার ফলে দুষ্কৃতীকারীরা তাদের পরবর্তী নীল নকশা অনুযায়ী কাজ করছে । 

সূত্রটি বলছে, টার্গেট কিলিং এর হিটলিষ্ট অনেক লম্বা। মুলত সারাদেশের মহাজোটের নেতৃত্বে থাকা বিশাল কর্মীবাহিনীর মনে আতংক তৈরী করতে এই কাজটি করা হচ্ছে। বিগত সময়ের ৫ জানুয়ারী নির্বাচনের আগেও এই কাজটি তারা করেছে। এমনকি ২০০১ সালের নির্বাচনের পূর্বেও জামাত শিবির রাজধানী ঢাকায় এমন অন্তত ৭ টি হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করেছিলো, চট্টগ্রামের আলোচিত এইট মার্ডার হত্যাকান্ডও একই কায়দায় সংঘটিত হয়েছিলো বলে ঢাকার শীর্ষ গোয়েন্দা সদর দপ্তরটির সূত্র নিশ্চিত করেছে। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়কে জরুরী নোট প্রদান করার পর বুধবারই সারাদেশের পুলিশ প্রশাসনকে জরুরী নোটিশ দেয়ার কথাও নিশ্চিত হওয়া গেছে।

SHARE