গোসলের ভিডিও ধারন করে ব্লাকমেইল। সাহসী নারীর পাল্টা প্রতিরোধ

19270

।।দেশরিভিউ।।
ফেসবুকে লিখেছেন ফাহমিদা ইয়াসমিন
(আমরা ছদ্মনাম ব্যবহার করছি)

কাল রাতের ঘটনা। এটা আমার সাথে ঘটে যাওয়া। আমাদের ২টা বার্থরুম। একটা বাসার ভিতরে একটা বাইরে। বাইরেরটা টিন সেডের, বাসার বাথরুমে লোক থাকলে সচারাচর আমি বাইরের বাথরুমে গোসল করি। আমার গোসল করার নিদিষ্ট কোনো টাইম নাই। কাজ শেষ করতে বেশীরভাগ সময় আমি রাতে গোসল করি।

তো কাল গেলাম বার্থরুমে, গিয়ে দেখি এই চিরকুট।হাতে নিয়ে পড়লাম, আমি একটু বিচলিত হয়নি।ঠান্ডা মাথায় কল দিলাম নাম্বারে,তখন রাত ১০ টা হবে।

কল দিলাম আম্মুর ফোন থেকে, কথা বলে মনে হলো কোনো লোয়ার ক্লাসের ছেলে কথা বলছে, ভাল করে শুদ্ধ ভাষায় কথা বলতে পারছেনা। তো আমি জানতে চাইলাম নাম কি? বললো রায়হান। বললাম আমার গোসল করার ভিডিও করছেন?
বললো হে। আমার ফোনে আছে,আপনি আপনার ইমু নাম্বার দেন,আমি আপনাকে পাঠায়।

আমি বললাম ভাই আমার গোসলের ভিডিও আমি দেখে কি করবো,আপনি দেখেন এটা আপনার কাজে লাগবে। আমার কোনো কাজে আসবেনা, আর আপনাকে বের করা এমন কোনো কষ্টের বিষয় না,৯৯৯ কল দিয়ে খালি আপনার নাম্বার টা দিব😊 ব্যাস হয়ে যাবে।

এরপর ছেলেটা আমাকে বলে আপনার মানসম্মানের ভয় নাই?
আমি বললাম ভাইরে আমি বেডার লগে গোসলে যায়নি যে আমি ভয়ে স্ট্রোক করবো। আমার বার্থরুমে আমি গোসল করছি, যা মন চাই করেন। আর আমার মানসম্মানের ও ভয় নাই। এটা বলার পরেই ছেলেটা বলে ইমু নাম্বার যখন দিবেন না তাহলে রাখি।

বিষয়টা জানালাম আপনাদের, আজকাল এমন অনেক হচ্ছে, তাই কেউ ভয় পাবেন না। ভয় পাওয়ার কিছু নাই। আজকাল সাইবার ক্রাইম আইন অনেক দ্রুত কাজ করে। তেড়িবেড়ি করলে নাম্বার আর চিরকুট টা থানায় গিয়ে একটা জিডি করে জমা দিয়ে দিব ডিজিটাল আইনে। শালা ভাবছে আমি ভয় পেয়ে তার হাত পায়ে ধরবো! মানুষ চিনে নাই।

SHARE