চট্টগ্রামের পূজা মণ্ডপে হামলায় জড়িত ৮৩ জন চিহ্নিত, আসামী কয়েক শতাধিক

475


দেশরিভিউ সংবাদ।।
শুক্রবার চট্টগ্রামের জেএম সেন হলের পূজা মণ্ডপে হামলার ঘটনায় মামলা করেছে পুলিশ। এ মামলায় ৮৩ জনকে চিহ্নিত করে মামলা করা হয়েছে। মামলায় তাদের নাম উল্লেখ সহ অন্তত কয়েকশ অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, মামলায় আসামিদের মধ্যে যাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে তারা সরাসরি হামলার সঙ্গে জড়িত ছিল। এদের সিসি ক্যামেরাসহ বিভিন্ন ভিডিও ফুটেজ ও স্থিরচিত্র দেখে শনাক্ত করা হয়েছে বলে জানান নগরীর কোতোয়ালি থানার ওসি নেজাম উদ্দিন।

জানা গেছে, হামলায় অংশ নেওয়াদের মধ্যে সরকার বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাদের সরাসরি সম্পৃক্ততা থাকার প্রমান পাওয়া গেছে। হামলাকারীদের অধিকাংশই ছিলেন নগরীর টেরিবাজার, আন্দরকিল্লা এলাকার বিভিন্ন দোকান কর্মচারী। নগরীর খলিফাপট্টি এলাকায় বসবাস করা নগর বিএনপির এক যুগ্ম-সাধারন সম্পাদকের অনুসারী নেতাকর্মীরাও এ ঘটনায় সামনের সারিতে অংশ নেওয়ার তথ্য পেয়েছে পুলিশ। এছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের সংগঠন যুব অধিকার পরিষদ, চট্টগ্রাম মহানগরের সদস্য সচিব মিজানুর রহমান তার দলবল নিয়ে মিছিলের নেতৃত্ব দেওয়ার স্থিরচিত্রও পুলিশের হাতে এসেছে।

পুলিশের একটি সূত্র দেশরিভিউকে বলেন, শুক্রবার জুমার নামাজের পর প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নিতে চট্টগ্রামের বাঁশখালী ও সাতকানিয়া উপজেলা থেকেও ছাত্রশিবিরের প্রচুর নেতাকর্মী নগরীর আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদে আসেন। তারাও নামাজ শেষে মন্ডপে হামলার মিছিলে অংশ নিয়েছে।

এদিকে চট্টগ্রাম নগর পুলিশের উপ কমিশনার (দক্ষিণ) বিজয় বসাক গণমাধ্যমকে মামলার বিষয়ে নিশ্চিত করে জানান, কুমিল্লায় কুরআন অবমাননার অভিযোগ এনে একদল মুসুল্লী নামাজ শেষে সমাবেশ করে। সেখান থেকে তারা চলে যাওয়ার সময় কিছু লোক হঠাৎ জেএম সেন হলের দিকে দৌঁড়ে গিয়ে ব্যানার ছেঁড়া শুরু করে। এ ঘটনায় আমরা মামলা করেছি। ঘটনার পরপর পুলিশ আশেপাশে বিভিন্ন স্থানে অভিযান শুরু করে। ভোর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েক জনকে আটক করা হয়। এ অভিযান চলবে।

SHARE