চট্টগ্রামে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১

79

।।দেশরিভিউন নিউজডেস্ক।।

নগরীর ডবলমুরিং থানার ঝর্ণা পাড়া এলাকায় ভাইয়ের বউয়ের সঙ্গে বিতণ্ডার পর তিন বছর বয়সী ভাতিজাকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় চাচা জসীম উদ্দিন রাজু (৩২) ভোররাতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়। এ সময় পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ও থানার ওসিসহ পাঁচজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

নিহত জসীম উদ্দিন রাজুর বিরুদ্ধে পুলিশ সদস্য হত্যাসহ ১৪টি মামলা রয়েছে। ‘বন্দুকযুদ্ধের’ স্থান থেকে একটি দেশীয় অস্ত্র, এক রাউন্ড কার্তুজ, চারটি খোসা, একটি ছোরা এবং ৮৭৫টি ইয়াবা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ বিষয়ে ডবলমুরিং থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জহির হোসেন বলেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হাজীপাড়া জলিল ম্যানশন বাড়ির মৃত বশির উল্লাহর ছেলে রাজু তার ছোটভাইয়ের স্ত্রী নিলু আক্তারের সঙ্গে বিতণ্ডা হয়। এর জের ধরে তিন বছরের ভাতিজাকে গলা কেটে হত্যা করে পালিয়ে যায় রাজু। এই ঘটনায় রাজুর ভাই রাসেদের স্ত্রী নিলু আক্তার বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত পর্যায়ে পুলিশ জানতে পারে আসামি ঝর্ণা জোড় ঢেবা এলাকায় অবস্থান করছে। সেখানে পুলিশ অভিযানে শুরু করলে সহযোগীদের নিয়ে রাজু শক্ত অবস্থান গড়ে তোলে এবং পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এই সময় আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এতে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় রাজুকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কতর্ব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এই রাজুর বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে আগ্রাবাদ শিশু পার্ক এলাকায় পুলিশ সদস্য ফরিদ উদ্দিনকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়া হাজী পাড়ার খোরশেদ হত্যা মামলারও আসামি রাজু। তার বিরুদ্ধে মাদক ও ছিনতাইসহ ১৪ টি মামলা রয়েছে। ইতোপূর্বে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তারও হয়েছিল রাজু। জামিনে এসে বার বার অপরাধে জড়ায় রাজু।

SHARE