চট্টগ্রামে প্রধানমন্ত্রীর উপহার: দশটি স্কুলবাস পেয়ে উচ্ছসিত শিক্ষার্থীরা

463

।।দেশরিভিউ সংবাদ।।
চট্টগ্রামের শিক্ষার্থীদের জন্য ১০টি স্কুল বাস উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। স্কুলবাস উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে এসে তাই আনন্দে মাতোয়ারা চট্টগ্রামের হাজারো শিক্ষার্থী।

আজ শনিবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে নগরীর জিমনেশিয়াম চত্বরে বাসের উদ্বোধন করেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল জানান, সারাদেশের নিরাপদ সড়কের দাবীতে ছাত্র আন্দোলনের সময় প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী বিআরটিসির মাধ্যমে বাসগুলো বরাদ্দ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মাত্র ৫ টাকা ভাড়ায় স্কুল ও মাদ্রাসার দশম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা এসব বাসে যাতায়াত করতে পারবে। টাকা নেয়ার জন্য বাসের সামনে ও পেছনে লাগানো থাকবে ‘সততা’ বাক্স। সেখানেই ভাড়ার টাকা জমা রাখবে শিক্ষার্থীরা।

প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

উল্লেখ্য নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের সময় চট্টগ্রামের শিক্ষার্থীরা স্কুলবাস চালুসহ ৯ দফা দাবি তুলে ধরেন। সারাদেশে আন্দোলন চলাকালে সর্বপ্রথম চট্টগ্রামের শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগের সাথে মিলে জেলা প্রশাসনের সাথে বৈঠক করে এ দাবী জানায়। জেলা প্রশাসন দাবী পূরনের আশ্বাস দিলে ক্লাসে ফিরে যায় শিক্ষার্থীরা।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেন, মহাত্মা গান্ধী বলেছিলেন চট্টগ্রাম সবার আগে। আসলেই চট্টগ্রাম সবসময় এগিয়ে।
“এটা তোমাদের অর্জন। সারাদেশে যখন আন্দোলন তখন তোমরা কিছু দাবি দিয়েছিলে তারই একটি এই দ্বিতল বাস। প্রতিটি বাসে ছয়টি করে সিসি ক্যামরা থাকবে। আশা করি নিজ দায়িত্বে সততা বক্সে ভাড়া দিবে। নিজেদের সম্পদ নিজেরা ধরে রাখবে।”

বিশেষ অতিথি মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক বলেন, “দেশে এই প্রথম স্কুলছাত্রদের জন্য বাস দিয়ে তোমাদের দাবি পূরণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। গুণগত শিক্ষার পথে আমরা একধাপ এগিয়ে গেলাম।
“তোমরা এমন ভাবে বাসগুলো দেখবে যাতে এই দৃষ্টান্ত দিয়ে সারাদেশের শিক্ষার্খীদের জন্য আরও বাস চাইতে পারি “

অনুষ্ঠানে সরকারি মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী রিহাত বিন মহি বলেন, “আমাদের আর টেম্পোর পিছনে ঝুলে, বাসে দাঁড়িয়ে থেকে স্কুলে যেতে হবে না। প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ। আশাকরি তিনি চট্টগ্রামে আরো কিছু স্কুল বাস দেবেন। আমরা ভালো করে লেখাপড়া করব।”

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আবু হাসান সিদ্দিকী, বিআরটিসি’র ম্যানেজার এম জে রহমান এবং স্পন্সর প্রতিষ্ঠান জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলমাস শিমুল। উপস্থিত ছিলেন নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে চট্টগ্রামে নেতৃত্ব দেওয়া নগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি ও মিনহাজ উদ্দিনসহ ছাত্রনেতারা।
রোববার সকাল থেকে নগরীর প্রথম রুটের পাঁচটি বাস বহদ্দারহাট মোড় থেকে ছেড়ে বাদুরতলা, মুরাদপুর, চকবাজা, গণি বেকারি, জামালখান, চেরাগি পাহাড়, আন্দরকিল্লা, কোতোয়ালী মোড় হয়ে নিউমার্কেট যাবে।
দ্বিতীয় ‍রুটের বাকি পাঁচটি বাস অক্সিজেন মোড় থেকে ছেড়ে মুরাদপুর, দুই নম্বর গেট, জিইসি মোড়, ওয়াসা, টাইগার পাস হয়ে আগ্রাবাদে যাবে। বাসগুলো একই পথে ফিরবে।

SHARE