চট্টলবীর’র বিছানা ও হুইল চেয়ার চমেকে

58

চট্টলবীর’ এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ব্যবহৃত ‘মেডিকেল বেড’ ও হুইল চেয়ার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে শিশু রোগীদের জন্য দিয়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি এগুলো অসুস্থতাকালীন অবস্থায় ব্যবহার করতেন ।

গত মঙ্গলবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে ‘সানশাইন চ্যারিটি’র উদ্যোগে বেড ও হুইল চেয়ার চমেক হাসপাতালের পরিচালক বি. জেনারেল জালাল উদ্দিনের হাতে তুলে দেন সানশাইন চ্যারিটির চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ সাফিয়া গাজী রহমান,ও এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছেলে বোরহানুল হাসান চৌধুরী সালেহীন।

এসময় বোরহানুল হাসান চৌধুরী সালেহীন বলেন, ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে আব্বাকে যখন সিঙ্গাপুর থেকে স্কয়ারে আনা হয় তখন ডাক্তারদের পরামর্শ অনুযায়ী আধুনিক মেডিকেল বেডটি কেনা হয়। তখন আব্বার উঠতে, বসতে ভীষণ সমস্যা হচ্ছিল। মাত্র দুই রাত তিনি ওই বিছানায় শুয়েছিলেন। আর হুইল চেয়ারটিতে চড়ে আব্বা বাসায় ঢুকেছিলেন। ওই চেয়ারে বসে নামাজ পড়তেন।

অধ্যক্ষ সাফিয়া গাজী রহমান বলেন, বোরহানুল হাসান চৌধুরী সালেহীন আমার ছাত্র। আমরা চেয়েছি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ব্যবহৃত মেডিকেল বেড ও হুইল চেয়ারগুলো চমেকের গরিব-অসহায় শিশু রোগীদের কল্যাণে ব্যবহৃত হোক। সরকারি হাসপাতাল হলেও এখানে ব্যক্তিপর্যায়ে অনেক সহযোগিতা করার সুযোগ রয়েছে। এটি নিঃসন্দেহে সওয়াবের কাজ।

তিনি আরও বলেন, আজ আমরা আবুল খায়ের গ্রূপের সৌজন্যে হাসপাতালের শিশু রোগীদের মধ্যে পানীয় এবং ইউনিলিভারের সৌজন্যে হুইল ও লাইফবয় সাবান বিতরণ করেছি। এ কাজে সহযোগিতা করেছে সানশাইন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা।

চমেক হাসপাতালের পরিচালক বাংলানিউজকে বলেন, ১৩১৩ শয্যার এ হাসপাতালে গড়ে প্রতিদিন ভর্তি থাকেন আড়াই থেকে তিন হাজার রোগী। সরকারের পাশাপাশি পিএইচপিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও হৃদয়বান ব্যক্তিদের সহযোগিতায় আমাদের কিছু কিছু ওয়ার্ডে পরিবর্তন আনতে সক্ষম হয়েছি। বিশেষ করে শিশু রোগীরা উন্নত পরিবেশে বিভিন্ন রকম সেবা পাচ্ছে। সানশাইন চ্যারিটির সহযোগিতায় এ হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগে বিশিষ্ট রাজনীতিক ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ব্যবহৃত মেডিকেল বেড এবং লিউকেমিয়া ওয়ার্ডের জন্য হুইল চেয়ার দেওয়া হয়েছে। আশা করি, এ নগরের সামর্থ্যবান, শিল্পপতি , ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ এগিয়ে আসবেন।

২০১৭ সালের ১৪ ডিসেম্বর দিনগত রাত ৩টার দিকে বন্দরনগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন চট্টলবীর এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। ১৯৯৪ সাল থেকে টানা তিনবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মহিউদ্দিন চৌধুরী। আমৃত্য তিনি চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন।

দেশরিভিউ/ আরিফুল ইসলাম