ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে ‘প্রথম আলো’ ও ‘যুগান্তর’ পত্রিকার জলজ্যান্ত তথ্য সন্ত্রাস

6694

নূরুল আজিম রনি’র ফেসবুক পেইজ থেকে

।।দেশরিভিউ।।

ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে প্রথম আলো ও যুগান্তর পত্রিকা রীতিমত তথ্য সন্ত্রাসে নেমেছে। দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকা বুধবার দিবাগত রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলের একটি ভিডিও আপলোড করলেও তাতে মিথ্যা শিরোনাম বসিয়ে খবর প্রচার করছে। আবার ভিডিওটির উপর ভিত্তি করে পরবর্তীতে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকা প্রচার করছে উদ্দেশ্যমূলক মিথ্যা সংবাদ।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২:০৮ মিনিটে দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকা ১৫ মিনিটের একটি ভিডিও আপলোড করেছে। যেখানে শিরোনামে লেখা ছিলো ‘মাঝরাতে রোকেয়া হলের অনশনকারী ছাত্রীদের হেনস্তা!’ খবরটিতে কোন বিস্তারিত বিবরণ না থাকলে পত্রিকাটির ফেসবুক পেইজে ভিডিওটি আপলোড করা হয়েছে এই শিরোনামে ‘‘অনশনকারী ছাত্রীদের অভিযোগ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ ও ডাকসুর নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক (জিএস) গোলাম রাব্বানী নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে তাঁদের হেনস্তা করেন।’  অথচ ভিডিওতে এমন কোন দৃশ্য দেখা যায়নি। বরং রোকেয়া হলের বাইরে ২০-৩০ জন ছাত্রী বিক্ষোভ করলে, হলের ভেতরে থাকা প্রায় ২৮০০ ছাত্রীর অসুবিধার কথা শুনে ঢাকসুর জিএস রাব্বানী ঐখানে উপস্থিত হন বলে জানা যায়। ভিডিওতে দেখা যায়, রাব্বানী হলের বাইরে মেয়েদের সাথে কথা বলছে। সেখানে উপস্থিত এক মেয়ে বাকবিতণ্ডা করলে রাব্বানী সহ উপস্থিত অন্যান্য নারী নেতৃবৃন্দ মেয়েটির পরিচয় পত্র দেখতে চান, পরিচয় পত্রে দেখা যায় মেয়েটি ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের। তখন মেয়েটি এতো রাতে রোকেয়া হলে আসার কারন জানতে চাইলে, তার সঠিক সদুত্তর দিতে পারেনি মেয়েটি। এছাড়াও ভিডিওতে অন্যান্য মেয়েদের মধ্যে বেশিভাগ মেয়েকে বোরকা পড়া অবস্থায় দেখা গেলে, তারা কারা জিজ্ঞেস করলে, মেয়েগুলো ঐ স্থান থেকে ভিতরে সরে যেতে দেখা যায়।

হলের বাইরে চিৎকার চেচামেচির কারনে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার প্রস্তুতিতে অসুবিধা হচ্ছে বলে কিছু ছাত্রী অভিযোগ করে রাব্বানীর কাছে, যা ভিডিওতে স্পষ্ট। রাব্বানী এসময় হলের বাইরে থাকা মেয়েদের হলের ভিতর যাওয়ার অনুরোধ জানান। এছাড়া, রাব্বানী হলের বাইরে বিক্ষোভরত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের জান্নাতুল ফেরদৌসী হানি নামের এক মেয়েকে চিহ্নিত করেন এবং মেয়েটি কিছুদিন পূর্বে ইয়াবা ও মদ্যপান অবস্থায় গ্রেফতার হওয়ার নিউজটি মোবাইলে উপস্থিত সাংবাদিকদের দেখান। মধ্যরাতে মেয়েদের হলের গেইট খোলা রাখার কারনে রাব্বানী এসময় উপস্থিত সাংবাদিকদের হলের ভেতরে থাকা হাজার তিনেক মেয়ের নিরাপত্তা নিয়েও শংকিত বলে জানান।

কিন্তু এতসব সত্য কথা গোপন রেখে কতিপয় শিক্ষার্থীর বক্তব্য উল্লেখ করে গোলাম রাব্বানীর ছবি দিয়ে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকাটিও বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একটি মিথ্যা ও উদ্দেশ্যমূলক খবর প্রকাশ করেছে। যাতে শিরোনাম ছিলো ‘মধ্যরাতে অনশনকারী ছাত্রীদের হেনস্তার অভিযোগ ডাকসুর জিএসের বিরুদ্ধে’ 

পরিশেষে বলতে চাই, সাংবাদিকের অপবিত্র কলম দিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে পবিত্র রাখা যাবে কি?

নূরুল আজিম রনি। তারিখ ১৫ মার্চ ২০১৯ ইং

(দৈনিক প্রথম আলো ও যুগান্তর পত্রিকায় প্রকাশিত খবর দুইটির সত্যতা যাচাইয়ের সুবিধার্থে পাঠকদের জন্য সেই ভিডিওটি নিচে দেওয়া হলো)

SHARE