জনসাধারনকে ‘আশ্রয়কেন্দ্রে’ সরে আসার আহবান রেজাউল করিমের

222


।।দেশরিভিউ সংবাদ।।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট হওয়া ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ আঘাত হানার পূর্বেই চট্টগ্রামের উপকূলীয় এলাকা এবং নগরীর বিভিন্ন পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাস করা জনসাধারনকে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে সরে আসার আহবান জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মেয়র পদপ্রার্থী ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক এম রেজাউল করিম চৌধুরী।

মঙ্গলবার (১৯ মে ২০২০ইং) তারিখে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিত এম রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট সুপার সাইক্লোন ‘আম্পান’ বাংলাদেশে আঘাত হানার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। সুপার সাইক্লোন আম্পানের আঘাতে চট্টগ্রামে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা আছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

করোনাভাইরাস সংক্রমনের এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় আশ্রয়কেন্দ্র সমূহে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে জনসাধারনের জন্য প্রর্যাপ্ত খাবারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। অতি প্রবল এ ঘূর্ণিঝড় আরও ঘণীভূত হয়ে আঘাত হানার পূর্বে চট্টগ্রাম জেলার অন্তর্গত উপকূলীয় এলাকার ৪ লাখ মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নিতে মাঠে কাজ করছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

বিবৃতিতে এম রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, সুপার সাইক্লোন ‘আম্পান’ আঘাত হানার পূর্বে জনসাধারনের জান মাল রক্ষার্থে চট্টগ্রাম নগরীর উপকূলীয় এলাকা হিসাবে পরিচিত পতেঙ্গা ও কাট্টলীর জনসাধারনকে নিকটবর্তী আশ্রয়কেন্দ্রে সরে আসার অনুরোধ করছি। পাশাপাশি সুপার সাইক্লোন আম্পানের প্রভাবে নগরীতে পাহাড়ধ্বসের সম্ভাবনা রয়েছে। তাই নগরীর বিভিন্ন পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে বসবাস করা জনসাধারনকে নিকটবর্তী আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।

এসময় দলীয় নেতাকর্মীদের উপকূলবর্তী এলাকা এবং পাহাড়ের পাদদেশে ঝূকিপূর্ন অবস্থায় বসবাস করা লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে আনতে কাজ করার পাশাপাশি জনগনকে এতে উদ্ভুদ্ধ করার জন্য আশ্রয়কেন্দ্রসমূহে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধক হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক সরবরাহের জন্য আহবান জানান এম রেজাউল করিম চৌধুরী।

SHARE