জন্মদিনের কথা বলে বন্ধুকে দিয়ে কলেজছাত্রী ধর্ষণ, দুজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

26

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে ধর্ষক তাজকির হোসেন ও তার সহযোগী অপর কলেজছাত্রী দুলালী বেগমকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেয়া হয়।আজ(বৃহস্পতিবার) দুপুরে রংপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের বিচারক যাবিদ হাসান এ রায় প্রদান করেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, রংপুর কারমাইকেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বাংলা তৃতীয় বর্ষের এক ছাত্রী রংপুর নগরীর লালবাগ এলাকায় বঙ্গভুমি নামে একটি বেসরকারি ছাত্রাবাসে থেকে লেখাপড়া করতেন। তার এলাকার এবং পুর্ব পরিচিত রংপুর সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী দুলালী বেগম একই এলাকার সাকিব বেসরকারি মহিলা ছাত্রাবাসে থাকতেন।

২০১০ সালের ২১ ডিসেম্বর দুপুরে দুলালী বেগম তার জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটাসহ সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে বলে ওই ছাত্রীকে তার ছাত্রাবাসে তার কক্ষে ডাকেন। সরল বিশ্বাসে ওই ছাত্রী সেখানে গেলে দুলালী বেগম তার ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন। একটু পরেই বোরখা পরিহিত অবস্থায় তাজকির হোসেন চোখে চশমা পড়ে ওই কক্ষে প্রবেশ করার সঙ্গে সঙ্গে দুলালী বেগম বাইরে থেকে দরজা ছিটকিনি লাগিয়ে বন্ধ করে দেন।এদিকে বোরখা খোলার সঙ্গে সঙ্গে ওই ছাত্রী তাজকিরকে চিনতে পারেন। এ সময় তাজকির হোসেন অস্ত্রের মুখে তাকে জোর করে দু’দফা ধর্ষণ করে। পরে দরজা খুলে দিলে তাজাকির হোসেন আবারও বোরখা পড়ে বের হয়ে যায়। ওই ছাত্রী পুরো ঘটনা তার বাবা মাসহ স্বজনদের জানান।
এ ঘটনায় ওই ছাত্রী নিজেই বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তদন্ত করার পর পুলিশ আসামি তাজকির হোসেন ও দুলালী বেগমের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। মামলায় ১২ জন সাক্ষ্য ও জেরা শেষে বিজ্ঞ বিচারক দুই আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দেন।সরকার পক্ষের আইনজীবী বিশেষ পিপি রফিক হাসনাইন রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বাদী পক্ষ ন্যায্য বিচার পেয়েছে বলে জানান।

দেশরিভিউ/এস এস

SHARE