জামায়াতের ‘ষড়যন্ত্রে’ হেফাজতে বিরোধ: আল্লামা শফির ভিডিও বার্তা

1100


।।দেশরিভিউ সংবাদ।।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ, আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর অসুস্থতার সুযোগে ধর্মভিত্তিক সংগঠনটির নেতৃত্ব কবজায় নিতে বিরোধ শুরু হয়েছে। সংগঠনটির মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরীকে কেন্দ্র করে এ বিরোধ তৈরী হয় বলে জানা গেছে। অভিযোগ আছে, হেফাজতের নেতৃত্ব নিয়ে বিরোধ তৈরী করতে জামায়াতে ইসলাম সহ কয়েকটি সরকার বিরোধি রাজনৈতিক দল দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছে।

বিরোধের অংশ হিসাবে সর্বশেষ শনিবার (১৬ মে) সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত হাটহাজারী ওলামা পরিষদের নেতৃবৃন্দ আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে বিএনপি নেতা মীর মুহাম্মদ নাছির উদ্দিনের চাচাতো ভাই মীর ইদ্রিস, মাওলানা জাফর, মাওলানা সাইফুল্লাহ, মাও নাসির উদ্দিন মুনির, মাও ইমরান সিকদার সহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক থেকে আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম বা হাটহাজারীর বড় মাদ্রাসার মহাপরিচালক পদে আল্লামা শফিকে সরিয়ে হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরীকে বসানোর পরিকল্পনা করা হয়।

এদিকে হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরীর এমন কর্মকান্ডে ক্ষুব্দ হয়েছেন হেফাজতের আমির ও আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহম্মদ শফি।

শনিবার অসুস্থ শরীরে আহম্মদ শফি এক ভিডিও বার্তায় বলেন “দায়িত্বে আসার পর থেকে এই মাদ্রাসার জন্য কী করেছি না করেছি সব মানুষের জানা আছে। এমন কিছু অপবাদ দেয়া হচ্ছে, যেগুলোর কোনো ভিত্তি নেই। সারাটা জীবন মাদ্রাসার জন্য নিজের জীবনকে কোরবান করে দিয়েছি। কাউকে নায়েবে মোহতামিম অথবা জিম্মাদার করে দিইনি। যা কিছু করার মাদ্রাসার জন্য সব মজলিসে শূরা করবে।”

হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরীর সাথে যুদ্ধাপরাধী দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর পূ্ত্র শামীম সাঈদীর ছবি।

এদিকে হেফাজতের আমির ও আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহম্মদ শফির অনুসারীরা ফেসবুকে একটি ছবি ভাইরাল করেছেন। ছবিতে হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরীর সাথে যুদ্ধপরাধী দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর পূত্র শামীম সাঈদীকে দেখা গেছে। শফি পন্থী হেফাজতের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, বাবুনগরী জামায়াতের নির্দেশনায় হেফাজতের মধ্যে অভ্যন্তরীন বিরোধ তৈরি করছে।

SHARE