জিয়ার গাড়ি বহরের সামনে শামীম ওসমানের কান্ড (ভিডিও)

2066

।।দেশরিভিউ নারায়নগন্জ।।
শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জের মিশনপাড়ায় সলিমুল্লাহ সড়কে ‘রুখে দাঁড়াও স্বাধীনতাবিরোধী সব অপশক্তির বিরুদ্ধে’ ব্যানারে আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন নারায়নগন্জের সাংসদ শামীম ওসমান।

দীর্ঘ বক্তব্যের একপর্যায়ে শামীম ওসমান বলেন, ১৯৭৯ সালের একটি ঘটনা। তখন শরীরে এত মাংস ছিল না। তুলারাম কলেজে  ইন্টার সেকেন্ড ইয়ারে পড়ি। শুনলাম একজন লোক আসবেন তার নাম জিয়াউর রহমান। আমাদের আব্দুর রাজ্জাক ভাই বললেন এই জিয়া হলেন বঙ্গবন্ধু হত্যার নীল নকশাকারী। জিয়াউর রহমান তখন ঢাকা- নারায়নগঞ্জ পুরনো রোড দিয়ে আসছেন। সামনে বহর পেছনে বহর। সাতটা ছেলে দাড়িয়ে গেলাম কলেজের সামনে। বললাম, জেনারেল জিয়া জিন্দাবাদ। জিয়া হাত বাড়ালো হ্যান্ডশেক করার জন্য। আমরা এমনই বদমাশ ছিলাম। হাত ধরে বললাম, খুনী জিয়ার গদিতে আগুন জ্বালো একসাথে। প্রচণ্ড পিটানো হলো। এত মারা হলো। মজার ব্যাপার হলো ব্যাথা পাইনি। আবার উঠে পতাকাটা ছিড়ে ফেললোম। সামনেই তখন জাগো দল। বিএনপি তখন প্রস্তুত হয়নি। তলোয়ার রামদা নিয়ে তারা দৌড়ে আসলো। আমরা পালালাম না। ওরা আসতে সাহস পেলো না। কারণ ওরা বুঝেছে আমরা মুজিবের সন্তান’।

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান সমাবেশে বলেছেন, প্রশাসনের ভাইদের অনুরোধ করবো নারায়াণগঞ্জে শুদ্ধি অভিযান চালান। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে জিয়া পারেনি, এরশাদ পারেনি, খালেদা জিয়া পারেনি, আর কেউ পারবেও না। চেষ্টা করবেন না, কর্মীদের ওপর আঘাত আসলে যেই হোক, ছাড় নেই।

শামীম ওসমান বলেন, আজকের সমাবেশ অন্য কোনো সাবজেক্ট নয়। গত কোরবানির ঈদে মাংস বিতরণের নামে একটি এনজিও রোহিঙ্গাদের মধ্যে অস্ত্র বিতরণ করেছে। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহা নামে এক নারী অনেক কিছু বলে এসেছে। ড. কামাল, মির্জা ফখরুলরা বিদেশিদের সঙ্গে মিটিং করছেন। মনে রাখতে হবে, শুধু দেশে নয়, বিদেশেও বাংলাদেশকে নিয়ে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। এটা যখন শুনলাম, তখনই এ সভার প্রস্তুতি নিলাম।

দেশরিভিউ/ভিডিও-নিউজ

SHARE