টি-টুয়েন্টির সামনে বাঁচবে না টেস্ট ক্রিকেটঃ ম্যাককালাম

17

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ২০১৬ সালেই বিদায় নিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক ও বিশ্বেরই অন্যতম হার্ডহিটিং ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। বর্তমানে বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টুয়েন্টি লিগ খেলে বেড়ান এই ৩৬ বছর বয়সী। আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া টি-টুয়েন্টির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক এই ব্যাটসম্যানের মতে ভবিষ্যতে টি-টুয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজগুলোই ক্রিকেটারদের ধরে রাখবে, জাতীয় দলের হয়ে খেলতে দেবে না। তিনি আরো মনে করেন এই টি-টুয়েন্টির সামনে টেস্ট ক্রিকেট বাঁচতে পারবে না।

ইংল্যান্ডে ২০০৩-০৪ মৌসুম থেকেই ক্লাব পর্যায়ে টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট হয়ে আসছে। তবে ২০০৮ সালে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) শুরু হওয়ার পর থেকেই এমন টুর্নামেন্টের কদর বাড়তে থাকে। বর্তমানে মূলত এভাবেই খেলা হয় টি-টুয়েন্টি টুর্নামেন্টগুলো। অনেক সময়ই কিছু খেলোয়াড় জাতীয় দলে না খেলে এসব লিগে খেলে সমালোচিত হন। তবে ম্যাককালাম মনে করেন ভবিষ্যতে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোই ছড়ি ঘোরাবে জাতীয় দলের ওপর, ‘অনেক অনেক সময় পর আমি দেখতে পাচ্ছি খেলোয়াড়রা টি-টুয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর অধীনে থাকবে। আমি দেখছি না তারা সেসব ক্রিকেটারদের জাতীয় দলের টেস্ট ম্যাচের জন্য ছেড়ে দিচ্ছে।’

নিউজিল্যান্ডের হয়ে ১০১টি টেস্ট ম্যাচ খেলা এই উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যানের মতে ক্রিকেটের সবচেয়ে দীর্ঘ এই ফরম্যাটও টিকবে না, ‘আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি সময়মত টেস্ট ক্রিকেট আর থাকবে না। কারণ খুব কম দলেরই এই ক্রিকেট খেলার সামর্থ্য আছে।’

ক্রিকেটের শুদ্ধতম রূপ হিসেবে ম্যাককালাম টেস্টকে সম্মান করেন। তবে তার মতে টি-টুয়েন্টির যুগে এত সময় নিয়ে ক্রিকেট দেখার সময় নেই কারো, ‘মানুষ শুধু টিভিতেই না, মাঠে এসেও টি-টুয়েন্টি দেখছে। সমাজের পরিবর্তন হচ্ছে তাই না? কারো টেস্টের জন্য চার-পাঁচদিন সময় নেই। প্রথম দিনের প্রথম সেশন, বেশি উত্তেজনাপূর্ণ হলে শেষ দিনের শেষ সেশন দেখতে পারে তারা। এমন হলে দলগুলো টিকবে কিভাবে?’

 

দেশরিভিউ / আরিফু ইসলাম

SHARE