ঢাকার আন্ডারওয়ার্ল্ডের সমাজ্ঞী শামিমা নূর পাপিয়া আটক

538

।।দেশরিভিউ সংবাদ।।
খোঁজ মেললো ঢাকার আন্ডারওয়ার্ল্ডের সমাজ্ঞী শামিমা নূর পাপিয়ার। রাজধানীর গুলশানের অভিজাত হোটেল ওয়েস্টিনে প্রেসিডেন্ট স্যুট নিজের নামে সবসময় বুকড করে নানা ধরনের অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছিলেন এ নারী। যিনি হোটেলটির বারে বিল বাবদ প্রতিদিন পরিশোধ করতেন প্রায় আড়াই লাখ টাকা।

তবে বৈধ আয় অনুযায়ী, পাপিয়ার বাৎসরিক আয় মাত্র ১৯ লাখ টাকা। অথচ হোটেল ওয়েস্টিনে শুধুমাত্র গত তিন মাসেই বিল পরিশোধ করেছেন প্রায় ১ কোটি ৩০ লাখ টাকা। পাপিয়া নারী সংক্রান্ত অপকর্ম ছাড়াও অস্ত্র-মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি এবং বিভিন্ন তদবির বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত ছিল বলে জানিয়েছে।

শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে দেশত্যাগের সময় শামিমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউসহ (২৮) চারজনকে আটক করে র‌্যা’ব-১। আটক অন্যরা হলেন- পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওরফে মতি সুমন (৩৮), সাব্বির খন্দকার (২৯) ও শেখ তায়্যিবা (২২)।

র‌্যাব জানায়, অনৈতিক ব্যবসায় জড়িত ওই নারীর নাম শামীমা নূর পাপিয়া। দেশ ত্যাগের আগে পাপিয়ার দুই ব্যক্তিগত সহযোগী ও তার স্বামীকে আটক করা হয়। অনৈতিক কাজ করে কোটিপতি বনে গেছেন তিনি। রাজধানীর অভিজাত এলাকায় একটি হোটেলেই তিন মাসে খরচ ১ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে র‍্যাব ১ এর অধিনায়ক শাফিউল্লাহ বুলবুল বলেন, শামীমা নুর পাপিয়া একজন ব্যবসায়ী। এফডিসির কাছে কার এক্সচেঞ্জ নামক গাড়ির শোরুম আছে তার। নরসিংদী এলাকার অসহায় সুন্দরী নারীদের আর্থিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে অনৈতিক কর্মকাণ্ড চালাতেন তিনি। বছরের অধিকাংশ সময় রাজধানীর বিভিন্ন বিলাসবহুল হোটেলে অবস্থান করে, সেখান থেকেই অনৈতিক কাজে নারী সরবরাহ করেন তিনি। এই অবৈধ কাজ থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন কোটি কোটি টাকা। সে টাকায় কিনেছেন একাধিক বাড়ি, বিলাসবহুল গাড়ি ও ফ্লাট ।

শাফিউল্লাহ বুলবুল আরও বলেন, গুলশানে অবস্থিত হোটেল ওয়েস্টিনের ২১ তলায় তার দুটি রুম ভাড়া নেওয়া আছে তার। সেখানেই তিনি তার কাজে সহযোগী মেয়েদের রাখেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এবং তার কাছ থেকে পাওয়া রশিদ অনুযায়ী, গত তিন মাসে ওয়েস্টিন হোটেলে বার খরচ ও রুম ভাড়া হিসেবে ১ কোটি ৩০ লাখ টাকা খরচ করেছে সে।

SHARE