দুই দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অভিজ্ঞতা বিনিময়ের সম্ভাবনা

620

।।দেশ রিভিউ-ডেস্ক ।। বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে পারস্পরিক ‘একাডেমিক এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম’ চালু করতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য। মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের সময় ঢাকায় যুক্তরাজ্যের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার কানবার হোসেন এই আগ্রহ প্রকাশ করেন। এসময় উচ্চশিক্ষা ক্ষেত্রে উন্নয়নসহ দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়। সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান শিক্ষা উপমন্ত্রী।

জানা যায় একাডেমিক এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম চালু হলে, দুইদেশের বিশ্ববিদ্যালয় এমনকি উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানসমূহ পরিদর্শনের বিশাল সুযোগ সৃষ্টি হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকায় ভারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার কানবার হোসেন বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে সহযোগিতার আগ্রহ প্রকাশ করে বলেন, ‘ভারত, মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখাসহ বিভিন্ন একাডেমিক বিনিময় কর্মসূচি চালু আছে।   বাংলাদেশের সঙ্গে এধরনের সহযোগিতা চালু হলে দেশের উচ্চশিক্ষার ইমেজ বাড়বে এবং বেশি সংখ্যক বিদেশি ছাত্র ভর্তি হতে আগ্রহী হবে।’

কানবার হোসেন আরও বলেন, ‘পাবলিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে ব্রিটিশ কাউন্সিলের অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ উপকৃত হতে পারে।’

বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের গভীর বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে উল্লেখ করে উচ্চশিক্ষা ক্ষেত্রে যুক্তরাজ্যের সহযোগিতা প্রস্তাবের জন্য শিক্ষা উপমন্ত্রী ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনারকে ধন্যবাদ জানান। এক্ষেত্রে দু’দেশের সহযোগিতা আরও  জোরদার হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার নওফেল।

দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি উল্লেখ করে ভারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনারকে উপমন্ত্রী নওফেল বলেন, ‘বাংলাদেশে রাজনৈতিক কার্যক্রম সবার জন্য উন্মুক্ত। এখানে রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনায় কারও কোনও বাধা নেই। শুধুমাত্র যারা হিংসাত্মক ও নৈরাজ্যমূলক কাজ করবে, তাদের বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবে।’

এসময় ব্রিটিশ হাইকমিশনের প্রথম সচিব (রাজনৈতিক) আবু জাকী এবং রাজনৈতিক বিশ্লেষক এজাজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

SHARE