দুই মেগা প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

506

।।দেশরিভিউ।।চট্টগ্রাম।। চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল বোরিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রবিবার আনুষ্ঠানিকভাবে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করার পাশাপাশি  এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের পাইলিং কাজের উদ্বোধনও করা হয়।

বন্দরনগরী চট্টগ্রামে প্রায় ১৪ হাজার কোটি টাকার দুই মহাপ্রকল্পের নির্মাণকাজ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রকল্প দুটি হচ্ছে কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিতব্য ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল’ও এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে। কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিতব্য টানেলটি দেশের প্রথম সুড়ঙ্গপথ। দুটি টিউব বিশিষ্ট মূল টানেলের দৈর্ঘ্য ৩.৪ কিলোমিটার। পশ্চিম ও পূর্ব প্রান্তে ৫.৩৫ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক এবং ৭২৭ মিটার ওভার ব্রিজসহ এ টানেল চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলাকে শহরাঞ্চলের সঙ্গে যুক্ত করবে। প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে সেতু কর্তৃপক্ষ। উদ্বোধন শেষে পতেঙ্গা সাগর পাড়ে আয়োজিত এক সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে যোগদান করেন প্রধানমন্ত্রী।

 

প্রয়াত মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর আন্দোলনকে স্মরন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ।

কর্নফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মানের জন্য চট্টগ্রামের প্রয়াত মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী সর্বপ্রথম আন্দোলন করেছিলেন। রবিবার চট্টগ্রামের উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন শেষে এক সুধী সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন “আজকের দিনে আমি মহিউদ্দিন চৌধুরীর কথা স্মরণ করছি। বেঁচে থাকলে তিনিই আজ সব থেকে বেশি আনন্দিত হতেন। কিন্তু আজকে তিনি দেখে যেতে পারলেন না। এটাই হচ্ছে আমার কাছে সবচেয়ে দুঃখজনক।”

রোববার চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় সুধী সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি আরো বলেন, আপনারা জানেন, আমাদের চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি, যিনি চট্টগ্রামের মেয়র ছিলেন তিনি টানেল নির্মাণের দাবিতে আন্দোলনও করেছিলেন। কারণ নদীর উপর ঘন ঘন ব্রিজ হলে পরে নদীর ক্ষতি হবে। আর টানেল করতে পারলে পরে নদীর ক্ষতিটা হবে না-এটাই ছিল তার যুক্তি এবং এটা ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি যুক্তি।

এর আগে আজ সকাল ১১টার  একটি বিশেষ ফ্লাইটে করে প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম পৌঁছান। চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তিনি সড়ক পথে নিকটস্থ টানেল এলাকায় টানেলের বোরিং কাজ ও এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের পাইলিং কাজের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধন শেষে পতেঙ্গা সাগর পাড়ে আয়োজিত এক সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।

SHARE