ধরলা নদীতে সাতশত কোটি টাকার ড্রেজিং’র কাজ অনুমোদনের অপেক্ষায়

72


।।এজি লাভলু, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি।।
খুব শিঘ্রই প্রায় ৭শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে কুড়িগ্রামে ধরলা নদীর বাম ও ডান তীর সংরক্ষণ সহ নদী ড্রেজিং প্রকল্পের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। এ প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন হলে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধ সহ ধরলা নদীর দু’ পাড়ের বাসিন্দাদের জীবনমানের ব্যাপক উন্নয়ন সহ পাল্টে যাবে দৃশ্যপট।

সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়- প্রস্তাবিত ‘কুড়িগ্রাম জেলা সদর, রাজারহাট ও ফুলবাড়ী উপজেলাধীন ধরলা নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ সহ বাম ও ডান তীর সংরক্ষণ এবং ড্রেজিং’ শীর্ষক প্রকল্পটি এখন পরিকল্পনা কমিশনে অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। এখানে অনুমোদন পাবার পর খুব শীঘ্রই প্রকল্পের কাজ শুরু করা হবে।

এ প্রকল্পের আওতায় ৮টি স্থানে মোট ১৬ দশমিক ৮৪০ কিঃ মিঃ নদীর তীর সংরক্ষণ কাজ, ৩৪ কিঃ মিঃ নদী ড্রেজিং, ৪টি স্থানে ১৬ দশমিক ৬৫৫ কিঃ মিঃ বিকল্প বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মান, ৪টি স্থানে ১৭ দশমিক ৯০০ কিঃ মিঃ বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ পূনারাকৃতিকরণ সহ ৮টি স্থানে আরসিসি দৃষ্টি নন্দন ঘাট নির্মান করা হবে। এর পাশাপাশি সমগ্র বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের দু’ ঢালে সবুজ বনায়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে বলে সুত্র জানিয়েছে।

সুত্রটি প্রস্তাবিত এই প্রকল্পের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানায়- বর্তমানে প্রকল্পটি এখন পরিকল্পনা কমিশনের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে গুরুত্বপুর্ণ এই মেগা প্রকল্পটি চুড়ান্ত অনুমোদন পাবে বলে সংশ্লিষ্টরা প্রত্যাশা করছেন।

এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আরিফুল ইসলাম জানান- প্রস্তাবিত প্রকল্পটির মাধ্যমে যদি ধরলা নদীকে সেভ সাইজে নিয়ে আসা যায় তাহলে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধ সহ সংশ্লিষ্ট এলাকার মানুষ জন ব্যাপকভাবে উপকৃত হবে। তাদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার প্রভূত উন্নয়ন সাধিত হবে। প্রস্তাবিত প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য সংশ্লিষ্ট আসনের মাননীয় এমপি যথেষ্ট আন্তরিক। এমতাবস্থায় প্রকল্পটি চুড়ান্ত অনুমোদন পাবে বলে আমি শতভাগ আশাবাদী।

প্রকল্পের বিষয়াদি নিয়ে কুড়িগ্রাম-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ পনির উদ্দিন আহমেদ বলেন- আমার নির্বাচনী ইশতাহারে দেয়া ওয়াদা অনুযায়ী আমি প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন হলে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধ সহ জনগণকে দেয়া আমার ওয়াদা পুরণ হবে।

SHARE