নব্য জেএমবি’তে দলে দলে যোগ দিয়েছে “ছাত্রশিবির”

225


।।দেশরিভিউ ঢাকা।।
গত চার মাসে রাজধানী ঢাকার পৃথক পাঁচটি এলাকায় পুলিশকে টার্গেট করে বোমা বিস্ম্ফোরণ ও বোমা ফেলে আসার ঘটনা ঘটে। সর্বশেষ শনিবার রাতে সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে পুলিশের ট্রাফিক বক্সের পাশে বোমা বিস্ম্ফোরণে পুলিশের দুইজন এএসআই আহত হয়েছেন।

পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি) বলছে, বর্তমানে দেশে ‘নব্য জেএমবি’ আবারো সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে। নব্য জেএমবিতে ছাত্রশিবিরের বর্তমান ও সাবেক নেতারা দলে দলে যোগদান করেছে।

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার ও সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলাম জানান, গত কয়েক মাসে চার-পাঁচটি ঘটনার বাইরে আগের সব সন্ত্রাসী হামলার রহস্য উদ্ঘাটিত হয়েছে। ইতিপুর্বে নব্য জেএমবির গ্রেফতারকৃত অধিকাংশ সদস্যকে আটকের পর তাদের অতীত রাজনীতি শিবিরের সাথে সংযুক্ত থাকার প্রমান মেলেছে।

মনিরুল ইসলাম বলেন, জেএমবি ছিল জামায়াতে ইসলাম ও শিবিরের সাবেক নেতাকর্মীদের নিয়ে গঠিত। পরে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী যোগ দিয়েছে। সর্বশেষ ২০১৬ সালের পরও যারা জড়িত হয়েছে, তাদের মধ্যে অনলাইন অ্যাকটিভিস্টই বেশি। কারণ হলি আর্টিসানের পরে তাদের যে সাংগঠনিক কাঠামো গড়ে উঠেছিল, তাতে সাবেক শিবির ছাড়াও আরও কিছু তরুণ জঙ্গিবাদে যোগ দিয়েছিল। সাংগঠনিক প্রচারণা ভেঙে যাওয়ায় অনলাইন প্রচারণা বেশি হয়েছে। এই অনলাইন প্রচারণার ভাষা এবং ছাত্রশিবিরের ব্যবহৃত কিছু ট্রেডমার্ক ল্যাঙ্গুয়েজ এখন পর্যন্ত ব্যবহৃত হচ্ছে। বিভিন্ন সময় যারা ধরা পড়ছে, তারাও দেখা গেছে শিবিরের সঙ্গে জড়িত ছিল। কেউ কেউ আছে, ছাত্রশিবিরের নেতা হিসেবে যার নামে ১৫-১৬টি মামলা রয়েছে। সে এই দলে যোগদান করে জঙ্গি গোষ্ঠীতে নাম লিখিয়ে জঙ্গি হিসেবেই এখন কার্যক্রম চালাচ্ছে। এ রকম কিছু লোককে চিহ্নিত করা গেছে, যাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

তিনি আরো বলেন, নব্য জেএমবির অধিকাংশই ছাত্রশিবিরের, সাবেক ছাত্রশিবিরের বা ছাত্রশিবির থেকে পদত্যাগ করে এসেছে।  

SHARE