নির্বাচনী হলফনামায় খালেদা জিয়া স্বশিক্ষিত। দুই বাড়ির মূল্য ১০০ টাকা ও ৫ টাকা।

90

নির্বাচনী হলফনামায় খালেদা জিয়া স্বশিক্ষিত। 

দুই বাড়ির মূল্য ১০০ টাকা ও ৫ টাকা।

নির্বাচনী হলফনামায় বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া তার আয় বছরে এক কোটি ৫২ লাখ টাকা বলে উল্লেখ করেছেন। এছাড়া এক কোটি ৫৮ লাখ টাকা তিনি দেনা রয়েছেন বলেও জানিয়েছেন।

স্থাবর সম্পদের মধ্যে রয়েছে ৮ শতক জমি এবং গুলশানে একটি বাড়ির ৩/১ অংশের মালিক; যার মূল্য ১০০ টাকা। সেই সঙ্গে ক্যান্টনমেন্ট একটি বাড়ি, যা বর্তমানে মালিকানা ও দখলে নেই; তার মূল্য ৫ টাকা।

এছাড়া শিক্ষাগত যোগ্যতায় তিনি স্বশিক্ষিত উল্লেখ করেছেন। তার নামে মামলা রয়েছে ৩৪টি। পেশা হিসেবে উল্লেখ করেছেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির সাংগঠনিক কার্যাবলী পরিচালনা করা।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে বগুড়া-৬ ও ৭ আসনের জন্য মনোনয়নপত্রের সঙ্গে দাখিল করা হলফনামা থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

এ হলফনামায় খালেদা জিয়া উল্লেখ করেছেন, তার নামে মোট ৩৪টি মামলা রয়েছে। এসব মামলার বেশিরভাগই উচ্চ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

বছরে বাড়ি ও দোকান ভাড়া থেকে ৬৭ লাখ ৩১ হাজার ৩১৪ টাকা এবং শেয়ার ব্যাংক সঞ্চয়পত্রের সুদ বাবদ ৮৫ লাখ ৯ হাজার ৮১৩ টাকাসহ প্রায় এক কোটি ৫২ লাখ টাকা আয় করেন খালেদা জিয়া।

তার অস্থাবর সম্পদের মধ্যে রয়েছে নগদ ৫০ হাজার ৩০০ টাকা, ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমা আছে ৪ কোটি ৭৭ লাখ ৮৫ হাজার ২৬৭ টাকা, পোস্টাল সেভিংস বা সঞ্চয়পত্রে স্থায়ী আমানত রয়েছে ৫ কোটি ৫৪ লাখ ৯৬ হাজার ৬৬২ টাকা। খালেদা জিয়ার নামে ৬৮ লাখ ৪৫ হাজার টাকা মূল্যের ৩টি টয়োটার জিপ, জহরতসহ ৫০ তোলা স্বর্ণ, ৫ লাখ টাকা মূল্যের ইলেকট্রনিক পণ্য ও ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা মূল্যের আসবাবপত্র রয়েছে।

এছাড়া স্থাবর সম্পদের মধ্যে রয়েছে ৮ শতক জমি এবং গুলশানে একটি বাড়ির ৩/১ অংশের মালিক; যার মূল্য ১০০ টাকা। পাশাপাশি ক্যান্টনমেন্টের একটি বাড়ি, যা বর্তমানে মালিকানা ও দখলে নেই; তার মূল্য ৫ টাকা। বেগম খালেদা জিয়া হলফনামায় বাড়ি ভাড়া হিসেবে ঋণ উল্লেখ করেছেন এক কোটি ৫৮ লাখ টাকা।

SHARE