পার্লামেন্টে অনাস্থা, ক্ষমতা হারালেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

11

স্পেনের পার্লামেন্টে অনাস্থা প্রস্তাব পাশ করায় ক্ষমতাচ্যুত হয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাজয়। শুক্রবার এই ভোটাটুভি অনুষ্ঠিত হয়। রাজয়ের পপুলার পার্টির কয়েকজন উচ্চপদস্থ সদস্যকে আদালত সম্প্রতি দুর্নীতির দায়ে কারাদণ্ড দেয় এবং দলটিকে অর্থদণ্ড দেয় স্পেনের আদালত।

একইসঙ্গে আদালত জানায়, রাজনৈতিক দলটির একটি গোপন অ্যাকাউন্ট রয়েছে।

এরপর দেশটির সোশ্যালিস্ট পার্টি প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এই অনাস্থা ভোটের প্রস্তাব দেয়।

সোশ্যালিস্ট পার্টির নেতা পেদ্রো স্যানচেজ হবেন স্পেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী। বামপন্থি দল উনিডস পোডেমস, বাস্ক এবং কাতালান ন্যাশনালিস্ট দলসহ ছয়টি দল সানচেজকে সমর্থন দিচ্ছে।

পার্লামেন্টে রাজয় ১৮০-১৬৯ ভোটে পরাজিত হন। একজন ভোট দানে বিরত থাকেন।

স্পেনের আর্থিক সংকটের মধ্যে ২০১১ সালে নির্বাচিত রাজয় তার দেশকে অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার দিকে এগিয়ে নিয়ে যান। তার সময়েই স্পেনে আরও দুটি রাজনৈতিক দলের উত্থান ঘটে।

এসময় স্বাধীনতার দাবিতে কাতালান সরকারের উদ্যোগও ভেস্তে যায় রাজয়ের শাসনামলে।

অনাস্থা ভোটে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার আগে রাজয় বলেন, ‘স্পেনের প্রধানমন্ত্রী হওয়াটা ছিল আমার জন্য সম্মানের বিষয়। স্পেনকে যে অবস্থায় পেয়েছি তার চেয়ে উন্নত অবস্থায় রেখে যেতে পারাতেও সম্মানিত বোধ করছি।’

বহু ভাগে বিভক্ত স্পেনের পার্লামেন্টে সরকার টিকিয়ে রাখা স্যানচেজের জন্য সহজ হবে না বলে ধারণা করা হচ্ছে। বর্তমান সংসদের ৩৫০ আসনের মধ্যে সোশ্যালিস্টদের অধিকারে রয়েছে ৮৪ আসন।

যেসব দল রাজয়ের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন তারা বলছে, রাজয়কে ‘না’ বলা মানে এই নয় যে তারা স্যানচেজের জন্য ‘হ্যাঁ’ বলে তাকে সমর্থন দিয়েছেন।

দেশরিভিউ/শিমুল

SHARE