পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষস্থলে শক্ত ঘাঁটি গড়েছে চীন

70

।।দেশরিভিউন নিউজডেস্ক।।

দুদিন আগেই দুই দেশ প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে সেনা সরাতে রাজি হলেও গালওয়ান সংঘর্ষস্থলে শক্ত ঘাঁটি গড়েছে চীন। স্যাটেলাইটে ধরা পড়লো পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষস্থলের কাছে বড় মাপের নির্মাণ কাজ চালানোর চিত্র।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ২০ জুন গালওয়ান নদী উপত্যকায় গত সপ্তাহের সংঘর্ষস্থল এলাকায় কেবল একটি তাঁবু ছিল। সম্প্রতি উপগ্রহচিত্রে দেখা গেছে, সেই এলাকায় রীতিমতো কাঠামো তৈরি করে সেনাঘাঁটি বানিয়ে ফেলেছে চীন।

বুলডোজার, আর্থ মুভারের মত যন্ত্র ব্যবহার করে পাহাড়ের দেয়াল কেটে রাস্তা বানানো হয়েছে। তৈরি হয়েছে সেনাদের থাকার জায়গা। বসেছে ভারী অস্ত্রশস্ত্র। এছাড়াও দ্রুত পৌঁছানোর জন্য নদীর উপরে বানানো হয়েছে কালভার্টও।

এছাড়াও উপগ্রহচিত্র স্পষ্ট করেছে, এই চিত্র কেবল পয়েন্ট ১৪-র নয়, গালওয়ান উপত্যকার বড় অংশ জুড়েই দীর্ঘমেয়াদি নজরদারি পোস্ট বানানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে চীন। দুপক্ষের বৈঠকের পরেও তাতে কোনো লাভ হয়নি।

প্রাক্তন সেনা কর্মকর্তাদের আশঙ্কা, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে চীনা সেনারা কয়েকদিন পরই হয়তো সরে যাবে, কিন্তু তারা ভারতের যে অংশ দখল করে নির্মাণকাজ চালাচ্ছে, তা থেকে সরে আসবে কি না, তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।

এদিকে নির্মাণকাজের বড় অংশই ভারতীয় অংশে হচ্ছে বলে অভিযোগ। যদিও এ নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি ভারত।

এ বিষয়ে প্রাক্তন সেনা কর্মকর্তাদের বড় অংশের মতে, পাকা কাঠামো তৈরি করে ফেলার পরে সেখান থেকে চীনা সেনা ফিরে যাবে, এমন ভাবা ভুল। রণকৌশলগত ভাবে সুবিধা নিতেই পরিকল্পিত আগ্রাসন চালানো হয়েছে। তাই কূটনৈতিক ও সামরিক স্তরে দর কষাকষি করে কতটা জমি ভারত ফিরে পায়, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

SHARE