প্রচারণার ফাঁকে শিশুদের সঙ্গে উচ্ছ্বাসে মেতে উঠলেন আতিকুল ইসলাম

236

।দেশরিভিউ-ঢাকা।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম তখন আগারগাঁওয়ের তালতলা শতদল কমপ্লেক্স এলাকায় প্রচারণা চালিয়ে বেরিয়ে আসছিলেন। সড়কে মেয়র প্রার্থীকে ঘিরে ধরে উচ্ছ্বসিত শিশুর দল। তাদের আবদারে সেখানেই বসে পড়েন আতিকুল ইসলাম। এরপর তাদের সঙ্গে মেতে ওঠেন উচ্ছ্বাসে।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুরে প্রচারণার ফাঁকে মিনিট পাঁচেকের জন্য আতিকুল যেন মিশে যান শিশুদের দলে। সেখানেই এ মেয়র প্রার্থী আগামীর প্রজন্মকে নিয়ে নিজের স্বপ্ন ও পরিকল্পনার কথা বলেন।

নৌকার এ মেয়র প্রার্থী বলেন, এই শিশুরা দেশের ভবিষ্যৎ। এই শিশুরাই আগামীর সম্পদ। আমি মনে করি তাদের জন্য বিশেষ কিছু করতে হবে। শিশুরা যেন নির্বিঘ্নে পার্কে খেলতে পারে, সেদিকে আমাদের বিশেষ নজর দিতে হবে।

‘ভুলে গেলে চলবে না, এই শিশুরাই আগামীর বাংলাদেশ। তাই এই শিশুদের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে হলে, তাদের মাদক থেকে দূরে রাখতে হলে খেলার মাঠ দিতে হবে। আমি মেয়র নির্বাচিত হলে এবং আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থীরা বিজয়ী হলে এই শিশুদের জন্য বিশেষ নজর দেব।’

এসময় শিশুদের হাতে থাকা প্ল্যাকার্ড নিজ হাতে তুলে নেন আতিকুল। তিনি নারী ও শিশুবান্ধব কার্যক্রম গ্রহণ ও জোরদার কর্মসূচির প্রতিশ্রুতিও দেন।

এ মেয়র প্রার্থী বলেন, আমরা এই শিশু-যুবকদের জন্য এমন কিছু করব, তারা যেন নিজেদের উদ্ভাসিত করতে পারে, দেশকে আলোকিত করতে পারে।

এর আগে সোমবার (১৩ জানুয়ারি) আতিকুল রামপুরা-বাড্ডা এলাকায় প্রচারণার সময় একটি টং দোকানে ঢুকে চা বানিয়ে খাওয়ান সেখানে বসা লোকজনকে। আতিকুলের চা বানানো দেখে অনেকে দারুণ কৌতূহলে ভিড় করেন ওই চা দোকানের সামনে।

নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুসারে, আগামী ৩০ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। দুই সিটির প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে ইভিএমের মাধ্যমে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ।

SHARE