প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পর পুঁজিবাজারের সূচকে বড় উত্থান

75

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠক ও নির্দেশনার পর সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবসে সূচকে বড় ধরনের উত্থান হয়েছে পুঁজিবাজারে।শেয়ার কেনার হিড়িক ও বিনিয়োগকারীদের সক্রিয়তা বাড়ায় সাত বছরের মধ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ মূল্যসূচক বৃদ্ধির রেকর্ড গড়েছে পুঁজিবাজার। গতকাল রবিবার শেয়ারের দাম বৃদ্ধির পাশাপাশি মূলধন বেড়েছে ১৫ হাজার কোটি টাকা।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫ দশমিক ৫৯ শতাংশ বা ২৩২ পয়েন্ট বেড়ে হয়েছে ৪ হাজার ৩৮২ পয়েন্ট। সাত বছর আগে ২০১৩ সালের ২৭ জানুয়ারি দেশের প্রধান পুঁজিবাজারে নতুন এই সূচক চালু হওয়ার পর এত বড় উত্থান দেখা যায়নি।

একই দিন চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক সিএএসপিআই ৫ দশমিক ৬৬ শতাংশ বা ৭১৩ দশমিক ৪১ পয়েন্ট বেড়ে হয়েছে ১৩ হাজার ৩১৪ পয়েন্ট। লেনদেনও বেড়েছে দুই পুঁজিবাজারে। ডিএসইতে এদিন লেনদেন ৫৪ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৪১১ কোটি টাকা। সিএসইতে লেনদেন ৪০৫ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৪৩ কোটি টাকা।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের মতে, পুঁজিবাজারে এমন উল্লম্ফনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে নিয়ন্ত্রক সংস্থার বৈঠক বড় ভূমিকা রেখেছে। গত ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত ওই সভায় বাজার উন্নয়নে স্বল্প মেয়াদে বাস্তবায়নযোগ্য ছয়টি উদ্যোগের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। সেসব সিদ্ধান্ত বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়াতে বড় ভূমিকা রেখেছে।

এ ছাড়া সরকারি সোনালী, জনতা, রূপালী ও অগ্রণী ব্যাংককে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ বাড়ানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ব্যাংকিং বিধি ও আইন অনুযায়ী বিনিয়োগসীমার মধ্যে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের নির্দেশনা পেয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত ওই চার ব্যাংক শেয়ার কিনতে সক্রিয় হয়েছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে তিনটি বড় কোম্পানির দর বাড়ার কারণে সূচক বেড়েছে ৮৪ পয়েন্ট। সবচেয়ে বড় কোম্পানি গ্রামীণফোনের শেয়ার কেনার চাপে বিক্রেতা উধাও হয়ে গিয়েছিল। কোম্পানিটির শেয়ার দর বৃদ্ধির সর্বোচ্চ সীমায় পৌঁছে ২১ টাকা ১০ পয়সা বেড়ে ২৬৩ টাকা ৩০ পয়সায় লেনদেন শেষ হয়। গ্রামীণফোনের শেয়ারের কারণে সূচক বেড়েছে ৪৫ দশমিক ২৭ পয়েন্ট। ব্রিটিশ অ্যামেরিকান টোব্যাকোর শেয়ার সাড়ে সাত শতাংশ বা ৬৭ টাকা ৭০ পয়সা বেড়ে হয়েছে ৯৭০ টাকা ৬০ পয়সা। এরফলে সূচক বেড়েছে ১৯ দশমিক ৩৬ পয়েন্ট। স্কয়ার ফার্মার দর প্রায় ৮ শতাংশের বেশি বা সাড়ে সাড়ে ১৪ টাকা বেড়ে লেনদেন শেষ হয়েছে ১৯২ টাকা ৮০ পয়সায়। এরফলে সূচক বেড়েছে ১৯ দশমিক ৩১ শতাংশ।

এদিন ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল- স্কয়ার ফার্মা, সিঙ্গার বাংলাদেশ, লাফার্জ হোলসিম, কেপিসিএল ও এসএসস্টিল। দর বৃদ্ধির শীর্ষে ছিল- বেক্সিমকো ফার্মা, আইসিবি, স্টাইলক্র্যাফট, হাইডেলবার্গ সিমেন্ট ও দেশ গার্মেন্ট। দর হারানোর শীর্ষে ছিল- এসএসস্টিল, ইবিএল এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড, স্টান্ডার্ড সিরামিক, ঝুট স্পিনার্স ও এল আর গ্লোবাল মিউচুয়াল ফান্ড ওয়ান।

SHARE