ফতুল্লা মাদ্রাসায় ছাত্র বলৎকার, অভিযুক্ত মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

4425

।দেশরিভিউ।

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় মাদ্রাসার ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগে শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ১১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় ফতুল্লার পঞ্চবটি এলাকার তারতীলুল কুরআন ইন্টারন্যাশনাল নূরানী হাফিজিয়া মাদ্রাসা থেকে শিক্ষক তাকতির (৪৫)কে গ্রেফতার করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ফতুল্লার তারতীলুল কুরআন ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসার মেধাবী ছাত্র বায়েজীদ বোস্তামী (৮)কে পিতা আনোয়ার হোসেন ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত করার লক্ষ্যে পঞ্চবটিস্থ তারতীলুল কুরআন ইন্টারন্যাশনাল নূরানী হাফিজিয়া মাদ্রাসায় ভর্তি করে। ওই মাদ্রাসায় গত ২ বছর লেখাপড়া করে আসছে। ওই মাদ্রাসা থেকে গত ১০ এপ্রিল রাত ৮টায় বায়েজীদের বাবাকে জানানো হয় তার ছেলে অসুস্থ। সংবাদ পেয়ে বায়েজীদের বাবা আনোয়ার হোসেন তাকে মাদ্রাসা থেকে বাসায় নিয়ে আসে। এসময় তার পায়ুপথে রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। সঙ্গে সঙ্গে খাঁনপুর ৩০০শ’ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে গেলে বলাৎকারের বিষয়টি জানা যায় এবং বায়েজিদ বলাৎকারের বিস্তারিত বলে। পরের দিন ১১ এপ্রিল সকাল ৯টায় আনোয়ার হোসেন ও তার ভায়রাসহ অভিযুক্ত শিক্ষক তাকতিরের কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি তার উপর চড়াও হয়ে মারধর করে। পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আনোয়ার হোসেন ফতুল্লা মডেল থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফজলুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতারপূর্বক তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় এলাকায় তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে এবং এলাকাবাসী পাষন্ড শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছে।

 

SHARE