ফালুর সহযোগী ক্যাসিনো লোকমান আটক

351

।।দেশরিভিউ নিউজরুম।।
বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য, মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেডের ডিরেক্টর ইনচার্জ ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক (বিসিবি) মো. লোকমান হোসেন ভূঁইয়াকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব-২) সদস্যরা।

তেজগাঁওয়ের মনিপুরী পাড়ায় লোকমানের বাড়িতে বুধবার রাতে শুরু হয় অভিযান। দেশরিভিউতে লোকমানের ক্যাসিনো ব্যবসা নিয়ে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর নড়েচড়ে বসে প্রশাসন।

র‍্যাব-২ এর একটি দল  মো. লোকমান হোসেন ভূঁইয়াকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছে র‍্যাব।

দেশরিভিউ অনুসন্ধানে জানা গেছে, বিএনপির রাজনীতিতে জড়িত থাকার সুবাধে লোকমান হোসেন ১৯৯৪ সাল থেকে মোহামেডান ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত হন। ২০০১ সালে বিএনপি/জামাত ক্ষমতায় আসার পর লোকমান হোসেন নিজ হাতে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল, ছবি এবং শেখ হাসিনার ছবি ভেঙ্গে ব্যাপক আলোচনায় এসেছিলো। বাফুফের অফিস রুমে টানানো বঙ্গবন্ধু এবং শেখ হাসিনার ছবি নামিয়ে পা দিয়ে মাড়িয়ে ভেঙ্গেছে এমন অভিযোগ উঠেছিলো এই ক্যাসিনো সম্রাটের বিরুদ্ধে।

এরপরেই বিএনপির প্রভাবশালী নেতা মোসাদ্দেক আলী ফালুকে মোহামেডান ক্লাবটির সভাপতি করে নিজে বনে যান সাধারণ সম্পাদক। তারপর আর কখনোই পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি লোকমানকে।

জানা গেছে, ২০১১ সালে ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটিকে লিমিটেড কোম্পানিতে রূপান্তরিত করার পর সভাপতি পদ থেকে মোসাদ্দেক হোসেন ফালু সরে গেলেও লোকমান সরেনি। ভোটবিহীন অবস্থায় দুই বছরের জন্য তিনি সদস্যসচিব নির্বাচিত হলেও এখনো তিনি স্বপদে বহাল রয়েছেন। খেলোয়াড়দের কল্যাণ এবং ক্লাবের মানোন্নয়নের কথা বলে তিনি ক্যাসিনো বসান একক সিদ্ধান্তে। যদিও এখান থেকে অর্জিত কোনো টাকা তিনি ক্লাবের মানোন্নয়নে ব্যয় করেন না।

বিএনপি নেতা লোকমান এখন ক্যাসিনো সম্রাট, মোহামেডানের ভাবমূর্তি তলানিতে

 

 

SHARE