ফেসবুকের কল্যাণে ৪৮ বছর পর বাবাকে খুঁজে পেল সন্তানেরা

241

।।দেশরিভিউ, সিলেট।।

একাত্তরের পর ব্যবসার কাজে বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন ৩০ বছরের যুবক হাবিবুর রহমান। প্রায় চার যুগ পর হাবিবুর রহমানকে ফিরে পাওয়ার গল্পটি তাই অবিশ্বাস্য। এমন রূপকথার গল্প বাস্তবেই ঘটল সিলেটে।

ওসমানীতে ভর্তি, অথচ অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না’ এমন একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছিল ক’দিন আগে। এক সময় সেই ভিডিওটি আমেরিকা প্রবাসী এক স্বজনের চোখে পড়ে। এর সূত্র ধরে খোঁজ মেলে দীর্ঘ ৪৮ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া সেই হাবিবুর রহমানের।

হাবিবুর রহমানের বাড়ি বিয়ানীবাজার উপজেলার বেজ গ্রামে। হারিয়ে যাওয়া স্বজনকে এতো বছর পর খুঁজে পেয়ে আনন্দে আত্মহারা পরিবারের সদস্যরা। হাবিবুর রহমানের ছেলে জালাল উদ্দিন বলেন, যারা হাসপাতালে নিয়ে এসেছেন তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ, যারা ফেসবুকে ভিডিও করেছেন তাদের কাছেও আমি কৃতজ্ঞ।’

হাবিবুর রহমানের নাতি  মোহাম্মদ কেফায়েত হোসেন বলেন, আমার আম্মা ফোন দিয়েছিলো, বলেছিলো তোর দাদাকে ফেসবুকে দেখা গেছে, পাওয়া গেছে।’ যার মাধ্যমে ফেসবুকে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে, তাকেও ধন্যবাদ জানান তিনি।
স্বজনরা জানান, হাবিবুর রহমান মাজারে মাজারে ঘুমাতেন। এক পর্যায়ে মৌলভীবাজারের একটি মাজারেই পরিচয় হয় রায়-শ্রী এলাকার রাজিয়া বেগম নামে একজনের সাথে। তার সেবা যত্নেই কেটে যায় বছরের পর বছর।
সিলেট নগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন অশীতিপর এই বৃদ্ধ। আবছা আবছা স্মৃতি নিয়ে কথাও বলছেন স্বজনদের সাথে।

ফেসবুকের কল্যানে হাবিবুর রহমান ফিরেছেন স্বজনদের কাছে। কিন্তু মাঝখানে হারিয়ে গেছে ৪৮টি বছর এবং তার তিন ভাই ও স্ত্রী জয়গুণ নেসা। এই পাওয়া না পাওয়ার মাঝে স্বজনদের  চাওয়া ‘গুজবের ফেসবুক হোক কল্যাণের’।

SHARE