বর-কনেসহ নিহতের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ১০

141

 
।।দেশরিভিউ, স্থানীয় প্রতিনিধি।
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলায় ট্রেন ও বিয়ের যাত্রী বহনকারী মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে বর-কনেসহ ১০ জন নিহত ও ৬ জন আহত হয়েছেন।

সোমবার (১৫ জুলাই) সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় ঢাকা-রাজশাহী রেলপথের উল্লাপাড়ার পঞ্চক্রোশী ইউপির শাহী কোলায় অরক্ষিত রেল ক্রসিংয়ে দুর্ঘটনাটি ঘটে।
নিহতরা হলেন- জেলা শহরের কান্দাপাড়া গ্রামের আলতাফ হোসেনের একমাত্র ছেলে বর মো. রাজন (২৫), উল্লাপাড়া পৌর শহরের এনায়েতপুর গুচ্ছ গ্রামের আব্দুল গফুর শেখের মেয়ে নববধূ সুমাইয়া খাতুন (১৯), সয়াধানগড়া সুরুজ শেখের ছেলে সবুজ (২১), রামগাতী গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের ছেলে আব্দুস সামাদ (৫৫) ও তার ছেলে শাকিল হোসেন (২১), সয়াগোবিন্দ মিলন মোড়ের মৃত একরামুলের ছেলে মাইক্রোবাসের চালক স্বাধীন (৪০) ও দিয়ারধানগড়া আলতাফ হোসেনর ছেলে শরীফ (২৬), কালিয়া হরিপুর চুনিয়াহাটির মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে ভাষা শেখ (৫৫)। বাকী দুই জনের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

আহতরা হলেন- নাদেম তালুকদার (১৮), বায়েজিদ (১৮), নিরব তালুকদার (১৪), সুমন (২৭), নাজমুল আহসান (২৫) ও ইমরান (২০)। তাদের সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুর্ঘটনার পর ট্রেনটি প্রায় দেড় ঘণ্টা আটকা পড়ে থাকে।

উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আব্দুল হামিদ জানান, বর যাত্রীবাহী একটি মাইক্রোবাস উল্লাপাড়ার গুচ্ছ গ্রামে বিয়ে শেষে কান্দাপাড়ায় যাওয়ার পথে অরক্ষিত রেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ সময় ট্রেনটি মাইক্রোবাসকে অন্তত ২৫০ গজ ঠেলে নিয়ে গিয়ে থেমে যায়। এতে মাইক্রোবাসটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। মাইক্রোবাসের মধ্যে থাকা বর-কনেসহ ১০ জন ঘটনাস্থলেই মারা যান ও ৬ জন আহত হন। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। নিহতদের মধ্যে নয় জনের লাশ জিআরপি থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এক জনের লাশ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

SHARE