বাংলাদেশটাই এখন শেখ হাসিনার পরিবার: সাকিব

78

দেশরিভিউ স্পোর্টস ডেস্ক- সমৃদ্ধ আগামীর বাংলাদেশ গঠনে তরুণদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে থাকার আহ্বান জানিয়ে তরুণদের একটি ভিডিও বার্তা দিয়েছেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

রোববার সকালে তার ওই ভিডিও বার্তাটি প্রধানমন্ত্রীর ডেপুটি প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন ফেসবুক পেজে আপলোড দেয়ার পর তা ভাইরাল হয়ে যায়।

এই ভিডিওতে সাকিবকে বলতে শোনা যায়, “বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরিবারের সবাইকে হারিয়ে দেশকে জেতানোর লড়াইয়ে আছেন। বাংলাদেশটাই এখন তার পরিবার। সবাইকে নিয়ে সবার ভালো থাকার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। বিশেষ করে তরুণদের নিয়ে।

“সব ক্ষেত্রে সমৃদ্ধ আগামীর বাংলাদেশ গড়ার নীতি গ্রহণ করেছেন তিনি। সেখানে চাই তোমার সক্রিয় অংশগ্রহণ। এ অগ্রযাত্রা আরও এগিয়ে নিতে চাই তোমার অংশগ্রহণ।’

তরুণদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “আমার বিশ্বাস, আমরা দাঁড়ালে হারবে না দেশ। কারণ তরুণরাই আগামীর বাংলাদেশ। এবার তোমার পালা।”

একাদশ জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে তৈরি এ ভিডিও বার্তায় সাকিব বলেন, সবাইকে ভালো রাখা ও সবাইকে নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার এক দুর্বার যাত্রায় এখন আমরা আছি। বিদ্যুতে, শিক্ষায়, স্বাস্থ্যে, খাদ্যে, নারীর ক্ষমতায়নে, সামাজিক ও মানব উন্নয়নে তো বটেই… অবকাঠামো, যোগাযোগ ও ডিজিটাল উন্নয়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের উদাহরণ হতে চলেছে। এই ধারাকে অব্যাহত রাখতে হবে।তিনি বলেন, “এ দেশকে আমরা মা বলি। নিজের মাকে নিয়ে আমরা যেভাবে ভাবি, দেশকে নিয়ে কি আমরা সেভাবে ভাবি? অথচ, দেশ আমাদের নিয়ে ভাবছে। নজর রাখছে ভালো-মন্দের। তার ভালো থাকাই আমাদেরও ভালো থাকা।

“আর সবার ভালো থাকা মানে দেশের ভালো থাকা। তাদের নিয়ে এবার ভাবার সময় এসেছে আমাদের। কারণ দেশ মানে আর কিছু নয়- তুমি, আমি, আমরা। আমরাই দেশ।”

বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেটের মর্যাদা পাওয়ার প্রাথমিক দিনগুলির কথা স্মরণ করে ভিডিওর শুরুতে সাকিব বলেন,মাত্র ১৯ বছর বয়সে আমি ক্রিকেট শুরু করেছিলাম। এতো বছর পরেও যখন ক্রিজে দাঁড়াই, আমার সঙ্গে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। আজ তোমরা যারা তরুণ, তোমাদের প্রত্যেকের মধ্যেই স্বপ্ন আছে। কিন্তু শুধু স্বপ্ন থাকলেই হবে না। ব্যক্তির স্বপ্নকে দেশের স্বপ্ন করতে হবে। সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। নিজেকে তৈরি করতে হবে, চিনে নিতে হবে সঠিক পথ।

১৯৯৯ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত আমরা ৭২টি ম্যাচ খেলেছি। বেশিরভাগই হেরেছি। কিন্তু আমাদের আত্মবিশ্বাস ছিল, আমরা জিততে চেয়েছিলাম। কারণ এটা শুধু আমাদের কাছে খেলা নয়, দেশের সম্মান। এ জন্যই আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পেরেছিলাম।

SHARE