বার্সেলোনার রেকর্ড গড়া জয়

30

নতুন রেকর্ড গড়লো বার্সেলোনা । গতকাল শনিবার ক্যাম্প ন্যুতে ভ্যালেন্সিয়াকে ২-১ গোলে পরাজিত করার মধ্য দিয়ে স্প্যানিশ শীর্ষ লিগ লা লিগায় টানা ৩৯ ম্যাচে অপরাজিত থাকার নতুন এই রেকর্ড গড়েছে বার্সেলোনা। এর মাধ্যমে লা লিগায় ৩৮ বছরের পুরনো রেকর্ড ভঙ্গ করেছে কাতালান জায়ান্টরা ।

ম্যাচের ১৫ মিনিটে লুইস সুয়ারেজের গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। ৫১ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করেন স্যামুয়েল উমতিতি। রোমার বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে অবিশ্বাস্য পরাজয়ে চ্যাম্পিয়নস লীগ থেকে বিদায় নেবার পরে এটাই ছিল বার্সেলোনার প্রথম ম্যাচ।

ক্যাম্প ন্যুতে ১৫ মিনিটে ফিলিপ কুতিনহোর দারুন এক পাসে মৌসুমের ২৩তম গোল করেন উরুগুয়ের ফরোয়ার্ড সুয়ারেজ। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে বার্সার দ্বিতীয় গোলের যোগানদাতাও ছিলেন কুতিনহো। তার কর্ণার থেকেই হেডের সাহায্যে দলের জয় নিশ্চিত করেন উমতিতি।

৮৭ মিনিটে ড্যানিয়েল পারেয়োর পেনাল্টির গোলে ভ্যালেন্সিয়া এক গোল পরিশোধ করলেও তারা স্বাগতিকদের জয় আটকাতে পারেনি। এই জয়ে এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের থেকে ১৪ পয়েন্ট এগিয়ে শীর্ষস্থান ধরে রাখলো বার্সা।

একই সঙ্গে এই জয়ে লিগে অপরাজিত থাকার নতুন রেকর্ড গড়েছে আর্নেস্টো ভালভার্দের দল। এর আগে ১৯৮০ সালে রিয়াল সোসিয়েদাদ লিগে টানা ৩৮ ম্যাচে অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়েছিল।

২০১০-১১ মৌসুমে পেপ গার্দিওলার অধীনে টানা ৩১ ম্যাচ অপরাজিত ছিল বার্সেলোনা। এতদিন পর্যন্ত লিগে এটাই ছিল তাদের সেরা পারফরমেন্স। ১৯৮৯ সালে লিও বিনহাকারের অধীনে রিয়াল মাদ্রিদও টানা ৩১ ম্যাচে অপরাজিত ছিল।

বর্তমান অপরাজিত থাকার রেকর্ড গত এপ্রিলে শুরু করেছিল বার্সেলোনা। আগের সপ্তাহে মালাগার কাছে পরাজিত হওয়ার পর লুইস এনরিকের অধীনে রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে ৩-২ গোলের জয় দিয়ে জয়ের ধারায় ফিরেছিল বার্সা। তারপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।

মাদ্রিদের কাছে সেবারের শিরোপাটা হারলেও মৌসুমের শেষে টানা সাতটি ম্যাচে জয়ী হয়েছিল। গ্রীষ্ম মৌসুমে এনরিকের লাভিষিক্ত হন ভালভার্দে। নতুন কোচের অধীনে বার্সা এখনও ৩২টি লিগে ম্যাচে অপরাজিত থাকার রেকর্ড ধরে রেখেছে। পুরো মৌসুমে অপরাজিত থেকে প্রথম দল হিসেবে লা লিগায় শিরোপা জয়ের থেকে এখন তারা মাত্র ছয় ম্যাচ দুরে রয়েছে।

চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বিদায় নিলেও এখনও কাতালান জায়ান্টদের সামনে ঘরোয়া দুটি আসরে শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।

দেশরিভিউ / আরিফুল ইসলাম

SHARE