বিএনপি প্রার্থীর সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ার: মুমূর্ষু ৫ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী

405

দেশরিভিউ:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা চালিয়েছে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন আহমদ ও তার স্ত্রী ‘ধানের শীষ’ প্রতিকের প্রার্থী হাসিনা আহমেদের সশস্ত্র লোকজন। এ সময় এলোপাতাড়ি ব্রাশফায়ারের গুলি ও হামলায় আওয়ামী লীগের অন্তত ২০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে। তন্মধ্যে গুলিবিদ্ধ ঢেমুশিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্যসহ (মেম্বার) পাঁচজনকে মুমূর্ষু অবস্থায় প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। আওয়ামী লীগ এই ঘটনাকে পরিকল্পিত হামলা ও গুলির ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবি করেছে।

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, চকরিয়া-পেকুয়া-বাঁশখালী সড়ক হয়ে সকাল ১১টার দিকে পেকুয়া থেকে একটি কালো রঙয়ের নোয়া গাড়ি ইলিশিয়া-ঢেমুশিয়া ব্রিজ এলাকায় আসে। এ সময় মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা বিএনপির নেতা ও ঢেমুশিয়ার ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান নুরুল আলম জিকুর নেতৃত্বে গুলিবর্ষণ ও হামলা চালায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয়ে। হামলার সময় পেকুয়া উপজেলা যুবদল নেতা মুনতাজির কামরান জাদিদ মুকুটসহ বেশ কয়েকজন দলীয় নেতা উপস্থিত ছিলেন।

আজ রবিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উপকূলীয় মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলার পশ্চিম বড় ভেওলাস্থ ইলিশিয়া-ঢেমুশিয়া ব্রিজ এলাকায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবিদ্ধ অবস্থায় চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা পাঁচজন হলেন- উপজেলার ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের সাবেক সদস্য (মেম্বার) ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি গিয়াস উদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য নাজেম উদ্দিন, ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহাব উদ্দিন বাচ্চু ও সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন, ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি মিনার। এ ছাড়া আহত অন্যরা হাসপাতালে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

এদিকে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয়ে এই হামলার প্রতিবাদে কিছুক্ষণ পর এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করে আওয়ামী লীগ। প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য দেন কক্সবাজার ১ আসনের মহাজোট প্রার্থী জাফর আলমসহ দলের সিনিয়র নেতারা।

SHARE