বিমানবন্দরে যাতায়াত সহজ করতে কর্ণফুলী নদীতে ওয়াটার বাস

1598

যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ও যানজট এড়িয়ে সময় বাঁচাতে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ হাতে নিয়েছে ওয়াটার বাস চালুর প্রকল্প।যানজট এড়িয়ে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে যাতায়াত সোজা করতে কর্ণফুলী নদীতে ওয়াটার বাস চালুর প্রকল্প হাতে নিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

চট্টগ্রাম নগরীতে যানজট একটি বিরাট সমস্যা। এ যানজটে বিমানবন্দরে যাওয়া-আসা যাত্রীদের পড়তে হয় নানা ভোগান্তিতে। ভোগান্তি নিরসনের লক্ষে চট্টগ্রাম সদরঘাট থেকে পতেঙ্গা ১৫ নম্বর ঘাট পর্যন্ত কর্ণফুলী নদীতে একটি নৌরুট চালু হচ্ছে।

মূলত চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরগামী ফ্লাইটের যাত্রীদের সুবিধায় এই ওয়াটার বাস চালু করা হচ্ছে এমন তথ্য জানিয়েছেন বন্দরের কর্মকর্তারা।চট্টগ্রাম শহর একটি ব্যস্ততম বাণিজ্যিক প্রাণকেন্দ্র। শহর হতে শাহ আমানত বিমানবন্দরের দূরত্ব প্রায় ১৮ কিলোমিটার। নগরীর কেন্দ্রস্থল হিসেবে পরিচিত নিউমার্কেট মোড় থেকে শাহ আমানত বিমানবন্দরের দূরত্ব প্রায় ১২ কিলোমিটার।মুল শহর থেকে বিমানবন্দরে যেতে নগরীর দেওয়ানহাট, চৌমুহনী, আগ্রাবাদ, বাদামতল মোড়, কাস্টম মোড়, ইপিজেড মোড়ের যানজটে আটকে থাকতে হয় ঘন্টার পর ঘন্টা। ৩০ মিনিটের এ পথ চলতে সময় ব্যয় হয় কয়েক ঘন্টা।

বাংলাদেশ সিভিল এভিয়েশন চট্টগ্রাম সূত্রমতে, চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে প্রতিদিন আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ মিলিয়ে ৩০টির মতো ফ্লাইট অপারেট করা হয়। গড়ে ৩০টি ফ্লাইটে চার হাজারের মতো যাত্রী থাকেন। এই বিশাল সংখ্যক ফ্লাইটের যাত্রীর দুর্ভোগ কমাতে সদরঘাট থেকে ওয়াটার বাসে করে পতেঙ্গা ১৫ নম্বর ঘাটে চালু হবে আধুনিক ওয়াটার বাস।

বন্দর কতৃপক্ষ জানায়, ওয়াটার বাসগুলো নির্মানের দায়িত্ব বেসরকারি জাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ওয়েস্টার্ন মেরিনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। দ্রুত সময়ে এ ওয়াটার বাসগুলো চালু হবে আশা প্রকাশ করছেন কর্মকর্তারা।

SHARE