বৃষ্টিতে রোহিঙ্গা শিবিরে লঙ্কাকান্ড

42

গত দুই দিনের ভারী বর্ষণে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরের প্রায় দুই শতাধিক বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত হয়েছে অন্তত ২ জন।

মঙ্গলবার (১২ জুন) সকালের দিকে মহেশখালীর হোয়ানক ইউনিয়নের পানিরছড়া এলাকা এবং উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পের তেলিপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন— মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের পানিরছড়া এলাকার বাসিন্দা মো. বাদশা মিয়া (৩৫) এবং উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের জামতলী এলাকার হোসেন আহমদের ছেলে মোহাম্মদ আলী (২০)।

মহেশখালী থানার ওসি প্রদীপ বলেন, গত ৩ দিন ধরে সাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাবে মহেশখালীতে ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আজ ভোর থেকেও প্রবল বৃষ্টিপাত হচ্ছে।

তিনি বলেন, হোয়ানক ইউনিয়নের পানিরছড়া এলাকায় ভারী বৃষ্টিপাতের সময় বাড়ির শৌচাগারে ছিলেন স্থানীয় বাসিন্দা মো. বাদশা মিয়া। এ সময় পাহাড় ধসে বাড়ির পেছনের অংশের উপর এসে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলে মাটি চাপা পড়ে বাদশা মিয়া মারা যান। মৃতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান ওসি প্রদীপ।

এদিকে, ভারী বৃষ্টিপাত ও ঝড়ো হাওয়ায় উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের জামতলী এলাকায় গাছ চাপায় মোহাম্মদ আলী নামের একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানান উখিয়া থানার ওসি মো. আবুল খায়ের।

ওসি বলেন, গত কয়েকদিন ধরে উখিয়ায় ঝড়ো হাওয়ার পাশাপাশি ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। মঙ্গলবার সকালে ঝড়ো হাওয়ার সময় গাছ চাপা পড়ে এক রোহিঙ্গার মৃত্যু হয়।

মৃতের মৃতদেহ উদ্ধার করে ক্যাম্পের স্থানীয় এক হাসপাতালে রাখা হয়েছে বলে জানান ওসি খায়ের।

দেশরিভিউ/শিমুল

SHARE