বেরোবিতে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

212

বেরোবি প্রতিনিধি:

নিজস্ব বিভাগের শিক্ষককে বিভাগীয় প্রধান নিয়োগ, সেশনজট নিরসন এবং শিক্ষক ও শ্রেণীকক্ষ সংকট নিরসনের দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা। সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি ) সকাল এগারটায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মানববন্ধন ও সমাবেশে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দাবি আদায়ের আল্টিমেটাম দিয়ে অতিদ্রুত এসব দাবি বাস্তবায়নের আহবান জানায় শিক্ষার্থীরা।

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শাহজাহানের সঞ্চালনায় বক্তারা বলেন, অজ্ঞাত কারণে সমাজবিজ্ঞান বিভাগে যোগ্যতাসম্পন্ন চার সহকারী অধ্যাপক থাকা সত্ত্বেও বিভাগীয় প্রধান নিয়োগ দেওয়া হচ্ছেনা। যার কারণে স্থবির হয়ে পড়েছে এই বিভাগটি। উপাচার্য বিভাগীয় প্রধান হওয়ায় যে কোন ধরনের সিদ্ধান্ত এমনকি প্রত্যয়নপত্রের একটি স্বাক্ষর করতে দীর্ঘ দিন অপেক্ষা করতে হচ্ছে। শ্রেণী কক্ষ সংকট, শিক্ষক সংকট ও আনুষঙ্গিক প্রয়োজনীয় দাবির বিষয়ে কোন কার্যকরী পদক্ষেপ নিচ্ছেনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। যার ফলে সেশনজট বেড়ে যাচ্ছে।

বক্তারা অভিযোগ করেন, উপাচার্যের আন্তরিকতা থাকলেও একটি কুচক্রী মহল তাদের ব্যক্তিস্বার্থ হাসিলের জন্য উপাচার্যকে অনেক সময় অন্ধকারে রেখে শিক্ষকদের হয়রানির লক্ষে ইচ্ছাকৃতভাবে এসব সমস্যার সৃষ্টি করছে। উপাচার্যের (বিভাগীয় প্রধান) সাথে যৌক্তিক কাজে সাক্ষাত করতে গেলে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের­­ লাঞ্ছিত করা হচ্ছে। দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ায় আজ আমরা মাঠে নেমেছি।

শিক্ষার্থীরা উক্ত বিভাগের প্রতি কুচক্রী মহলের কালো থাবা প্রতিহতের ঘোষণা দিয়ে বলেন, কেউ যদি এরপরেও কোন ধরনের অপচেষ্টা চালায় তবে তা প্রতিহত করার জন্য প্রয়োজনে কঠোর থেকে কঠোরতর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

এ সময় অতিদ্রুত তিন দফা দাবি পুরণ করা না হলে আন্দোলনের মাধ্যমে তা পুরণ করার হুশিয়ারী দেন শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধন শেষের দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর রুহুল আমিন ও বহিরাঙ্গন বিভাগের পরিচালক রাফিউল আজম উপস্থিত হয়ে মানববন্ধনের অনুমতি নেওয়ার প্রয়োজন ছিল জানিয়ে দাবির বিষয়ে উপাচার্যের সাথে কথা বলার পরামর্শ দেন। পরে শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন শেষ করে একাডেমিক ভবন-৩ এর সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে দাবি আদায়ে অতিদ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার আহবান জানান।

মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উক্ত বিভাগের শিক্ষার্থী আশরাফুল আলম, কামরুল হোসেন, ইমরান হোসেন, অপ্সরী, আব্দুল হাকিম প্রমুখ। এ সময় উক্ত বিভাগের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

SHARE