আইপি ফোনে ৩০ পয়সায় কথা বলুন যেকোনো নম্বরে

119

আইপি ফোনে প্রতি মিনিট কল করার খরচ মাত্র মাত্র ৩০ পয়সা। প্রতি সেকেন্ডে পালস রয়েছে। এছাড়াও আইপি ফোন থেকে আইপি ফোনে কথা বলার কোনো খরচ নেই।

দেশে এখন ইন্টারনেট প্রটোকল টেলিফোন সার্ভিস প্রোভাইডার্স (আইপিটিএসপি) কোম্পানিগুলোকে অ্যাপের মাধ্যমে ভয়েস সেবার অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। মোবাইল ফোন অপাটেরগুলোর দৌরাত্বের কারণে আইপি টেলিফোন সেবা অতটা জনপ্রিয়তা পায়নি। কিন্তু দিন দিন এর গ্রাহক সংখ্যা বাড়ছেই।

দেশে আইপি টেলিফোন সেবায় এগিয়ে আছে আম্বার আইটি। প্রতিষ্ঠানটির আম্বার আইটি আইপি ফোন অ্যাপ ব্যবহার করে মাত্র ৩০ পয়সায় এক মিনিট কথা বলা যাবে যেকোনে টিঅ্যান্ডটি এবং যেকোনো অপারেটরের মোবাইল ফোনে। প্রতি সেকেন্ডে পালস রয়েছে। গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে বিনামূল্যে। এরপর জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে নিবন্ধন করলে ১০ টাকার ফ্রি টক টাইম দেয়া হবে।

আম্বার আইটির আইপি ফোনে রিচার্জ করাও সহজ। মোবাইল ব্যাংকিং ছাড়াও ইন্টারনেট ব্যাংকি এবং নেট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে অ্যাকাউন্টে রিচার্জ করা যায়। রিচার্জকৃত ব্যালেন্সের মেয়াদও অফুরন্ত। ফলে সাশ্রয়ী দাম কথা বলা যাচ্ছে। গ্রাহকদের খরচও কমে যাচ্ছে।

আম্বার আইটির সিইও আমিনুল হাকিম গণমাধ্যমকে জানান, হোয়াটসঅ্যাপ-ভাইবারের মতো অ্যাপগুলোতে শুধু ইন্টারনেটে অ্যাপ হতে অ্যাপে কথা বলা যায়। কিন্তু ইন্টারনেটভিত্তিক টেলিফোন বা আইপি টেলিফোনের অ্যাপে সাধারণ মোবাইল নেটওয়ার্কে বা ল্যান্ডলাইনে কথা বলা যায়। এ অ্যাপে ইন্টারনেট, সাধারণ মোবাইল নেটওয়ার্ক বা ল্যান্ডফোন যে কোনো মাধ্যমে কথা বলার সুবিধা রয়েছে। খরচও কম। আর এই আইপি ফোন হতে আইপি ফোনে কথা বলতে কোনো খরচ লাগে না।

তিনি জানান, গ্রাহক টানতে, আইপি ফোন ব্যবহারে গ্রাহকদের উদ্বুদ্ধ করতে আম্বার আইটি মাত্র ৩০ পয়সায় প্রতি মিনিটে কথা বলার সুযোগ দিচ্ছে।

অ্যাপ ছাড়াও বাজারে আইপি টেলিফোন সেট পাওয়া যাচ্ছে। এসব সেটের দাম ১৫০০ টাকা থেকে শুরু। এই ফোনে ইন্টারনেট সংযুক্ত করে সাধারণ টেলিফোনের মতোই কম খরচে কথা বলা যাচ্ছে। আইপি ফোন থেকে আইপি ফোনে কল করলে কোনো খরচ হয় না।

SHARE