ভাগ্য ঝুলে থাকা দলগুলোর আসরে টিকে থাকার অঙ্ক

15

ফিফা বিশ্বকাপের ২১তম আসরের গ্রুপের দ্বিতীয় রাউন্ডের খেলা চলছে। ইতিমধ্যে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে স্বাগতিক রাশিয়া, উরুগুয়ে, ফ্রান্স, ক্রোয়েশিয়া এবং আসর থেকে বাদ পড়লো মিশর, মরক্কো, সৌদি আরব,পেরু এবং কোস্টা রিকা। আর বাকিদের ভাগ্য এখনো ঝুলে আছে নানা রকম অঙ্কের হিসেব-নিকাশে।

এক নজরে দেখা যাক, আসরে টিকে থাকতে হলে ঝুলে থাকা দল গুলোর রাশিয়া বিশ্বকাপে টিকে থাকার অঙ্ক।

ঝুলে থাকা দল গুলোর নকআউট পর্বে যাওয়ার ক্ষেত্রে প্রথম পাল্লা দিতে হবে পয়েন্ট টেবিলে। এরপরে আসবে গোল ব্যবধান। আর সেটাও যদি সমান হয়ে যায় তবে দেখতে হবে গ্রুপ পর্বে কোন দল কয়টা গোল করেছে। সেটা সমান হলে, তারপরের বিবেচনায় থাকবে কার্ড। যে দল যত কম কার্ড দেখবে সেই দল এগিয়ে থাকবে।

যেমন, প্রতি হলুদ কার্ডে -১, এক ম্যাচে দুটি হলুদ কার্ড দেখলে -৩, সরাসরি লাল কার্ড দেখলে -৪, প্রথমে হলুদ কার্ড দেখে, পরে সরাসরি লাল কার্ড দেখলে -৫ হবে।

গ্রুপ ভিত্তিক অঙ্কে শেষ ষোলতে যাওয়ার হিসেব:

‘এ’ গ্রুপ- গ্রুপ এ থেকে ইতিমধ্যে শেষ ষোল নিশ্চিত করেছে স্বাগতিক রাশিয়া। তাদের পাশাপাশি নকআউট পর্বে গিয়েছে উরুগুয়ে। বাদ পড়েছে মিশর এবং সৌদি আরব। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হবে রাশিয়া-উরুগুয়ে। সেই ম্যাচে যারা জয় পাবে তারাই হবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন।

‘বি’ গ্রুপ-বি গ্রুপ থেকে বাদ পড়েছে মরক্কো। সমান চার পয়েন্ট করে আছে স্পেন এবং পর্তুগালের। শেষ ষোলতে যেতে দুই দলেরই দরকার এক পয়েন্ট করে। এক্ষেত্রে নিজেদের শেষ ম্যাচে ইরানের বিপক্ষে জয় অথবা ড্র করতে হবে পর্তুগালকে এবং মরক্কোর বিপক্ষে জয় বা ড্র পেতে হবে স্পেন কে। আবার হারলেও বেশ একটা ঝামেলা হবে না। যদি দুই দলের মাঝে গোল ব্যবধানে থাকে।

অপরদিকে ইরানের ভাগ্য ঝুলে আছে শেষ ম্যাচের উপর। শেষ ম্যাচে পর্তুগালকে হারাতেই হবে দেশটির। সেক্ষেত্রে যদি স্পেন হেরে যায় তাহলে গ্রুপ পর্বের শীর্ষে থেকেই নকআউটটে যাবে এশিয়ার দেশটি।

‘সি’ গ্রুপ- ইতিমধ্যেই নক-আউট পর্ব নিশ্চিত করেছে ফ্রান্স। ডেনমার্কের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে জয় পেলেই গ্রুপ পর্বের শীর্ষে থেকে শেষ ষোলতে যাবে ফরাসীরা। অপরদিকে নক-আউটে যেতে ডেন মার্কের দরকার এক পয়েন্ট। যার জন্য শেষ ম্যাচে ফ্রান্সকে ঠেকাতে হবে তাদের। যদি হেরে যায় তাহলেও চান্স আছে তাদের। সেক্ষেত্রে অপর ম্যাচে পেরুর কাছে অস্ট্রেলিয়া হারলে শেষ ষোলতে যাবে ডেনমার্ক। আর টানা দুই ম্যাচে হার নিয়ে গ্রুপ পর্ব থেকে ছিটকে গেছে পেরু।

‘ডি’গ্রুপ-নকআউট পর্বের সবচেয়ে বড় হিসেব এই গ্রুপে। টানা হতাশাজনক খেলায় আসর থেকে বাদ হওয়ার পথে হট ফেভারিট দল আর্জেন্টিনা। দ্বিতীয় পর্বে যেতে তাদের ভাগ্য নির্ভর করছে শেষ ম্যাচের উপরে। নকআউটে যেতে হলে শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়াকে হারাতেই হবে। একই সঙ্গে ক্রোয়েশিয়ার কাছে হারতে হবে আইসল্যান্ডকে। আর যদি আইসল্যান্ড এবং আর্জেন্টিনা দুই দলই জিতে যায় তাহলে গোল ব্যবধান হিসেব করা হবে।

এই গ্রুপ থেকে সবার আগে শেষ ষোল নিশ্চিত করেছে ক্রোয়েশিয়া। নিজেদের শেষ ম্যাচে আইসল্যান্ডকে হারালে গ্রুপ টেবিলের শীর্ষে থাকবে তারা।

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে আর্জেন্টিনাকে হারালেই নকআউটে সরাসরি যাবে নাইজেরিয়া। আর আইসল্যান্ড যদি ক্রোয়েশিয়ার কাছে হারে তবে সেক্ষেত্রে আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধে ড্র করলেই শেষ ষোলতে নাইজেরিয়া।

‘ই’ গ্রুপ: গ্রুপ ই তে ব্রাজিল এবং সুইজারল্যান্ডের সমান চার পয়েন্ট। সেক্ষেত্রে শেষ ম্যাচে সার্বিয়াকে হারালে নকআউটে যাবে ব্রাজিল। আর যদি হেরে যায় তাহলে সুইসদের হারতে হবে কোস্টা রিকার কাছে। তবে ব্রাজিলকে হারালেই শেষ ষোল তে যাবে সার্বিয়া। অপরদিকে কোস্টারিকার বিপক্ষে ড্র করলেই শেষ ষোল নিশ্চিত সুইসদের।

গ্রুপ ‘এফ এই গ্রুপে ইতিমধ্যে নকআউট প্রায় নিশ্চিত মেক্সিকোর। আর বাদ পড়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। নিজেদের শেষ ম্যাচে কোরিয়াকে হারালেই শেষ ষোলতে জার্মানি।সেক্ষেত্রে সুইডেন মেক্সিকোর কাছে হারতে হবে। আর সুইডেন যদি জিতে যায় তাহলে সুইডেন-জার্মানি-মেক্সিকো এই তিন দলের মাঝে যে দুই দল গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকবে তারাই যাবে পরের রাউন্ডে।

গ্রুপ ‘জি’– ৬ পয়েন্ট নিয়ে ইতিমধ্যে শেষ ষোলর পথে বেলজিয়াম। সেক্ষেত্রে বেলজিয়ামকে  শেষ ম্যাচে যদি ইংলিশরা হারাতে পারে তাহলে তাদের সঙ্গে দ্বিতীয় রাউন্ডে ইংল্যান্ড যাবে। আর যদি ইংলিশরা হারে তাহলে পানামা তিউনিসিয়া ম্যাচে যারা জিতে তাদের সঙ্গে গোল ব্যবধান হিসেব করে নিশ্চিত হবে দ্বিতীয় দল।

গ্রুপ ‘এইচ

– এই গ্রুপে সবারই এখনও শেষ রাউন্ডে যাওয়ার এখনো সুযোগ আছে। সমান তিন পয়েন্ট করে আছে জাপান এবং সেনেগালের। যেহেতু চার দলের এখনো দুটি করে ম্যাচ বাকি সেক্ষেত্রে সবার সমান সুযোগ এখনো রয়েছে।

দেশরিভিউ/এস এস

SHARE