মঙ্গল গ্রগে পাওয়াগেছে পানির অস্তিত্ব

72

লাল বর্ণের মঙ্গলগ্রহ নিয়ে মানুষের জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। দীর্ঘদিন ধরেই মঙ্গলগ্রহে প্রাণ ও পানির অস্তিত্ব রয়েছে বলে বিভিন্ন সময় জানান দিয়ে আসছিলেন বিজ্ঞানীরা। এবার বোধ হয়, সেই সম্ভাবনাকে জোরালো করলো ইতালির একদল বিজ্ঞানী। এই লাল গ্রহে স্বচ্ছ ২০ কিলোমিটার গভীর লেক রয়েছে বলে দাবি করছেন গবেষকরা।

সৌরজগতের নিকটতম মঙ্গলগ্রহ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই চলছে বিস্তর গবেষণা। গবেষণায় কখনো বা প্রাণের অস্তিত্ব কখনো বা অক্সিজেনের সন্ধান রটে। সেই সন্ধানে এবার নতুন মাত্রা যোগ করলো ইতালির মহাকাশ সংস্থা এ.এস.আই-এর একদল গবেষক। বুধবার এক প্রেস কনফারেন্সে ইতালিয়ান মহাকাশ সংস্থা ‘মার্স এক্সপ্রেস’ মিশনের ব্যবস্থাপকের দাবি, মঙ্গলে ২০ কিলোমিটার জুড়ে স্বচ্ছ পানির জলধার রয়েছে।

ইতালি মহাকাশ সংস্থা বৈজ্ঞানিক সমন্বয়কারী
এনরিকো ফ্লামিনি বলেন, ‘আমরা মঙ্গলগ্রহ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা করেছি। আর সেই গবেষণার সফল চিত্র সবার সামনে উপস্থাপন করেছি। মঙ্গলের তলদেশে পরিষ্কার স্বচ্ছ পানির অস্তিত্ব পেয়েছি। এতে কোন সন্দেহ নেই।’

এই হ্রদ আবিষ্কার তিন বছর পরিশ্রমের ফসল বলে দাবি করেন তারা। জলধারের সন্ধানে ‘মার্শ এক্সপ্রেস’ নামে পাঠানো নভোযান মঙ্গলের কক্ষপথে পরিদর্শন করেছে অনেকটা সময়। আর এর মাধ্যমেই বেরিয়ে আসে এ হ্রদের সন্ধান। তবে, সেখানে বাতাসের ঘনত্ব কম হওয়ায় জলধারটি বরফ মাটির নীচে আটকা পড়ে আছে। এছাড়া লাল মঙ্গলগ্রহের জলাধারের ১০ থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই তাপমাত্রায় বিশাল হ্রদের লবণ মাত্রাতিরিক্ত হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিজ্ঞানী রবার্তো অরোসেই বলেন, ‘এটি বড় আকারের চকচকে কোন পাথরের পাহাড় নয়। সেখানে টলমলে স্বচ্ছ পানির জলধার সন্ধান পাওয়া গেছে। এছাড়া পানির মধ্যে যাবতীয় গুণাগুণ এর মধ্যে রয়েছে বলে আশা করা যাচ্ছে। প্রয়োজনে সেখানে আরো অনুসন্ধান চালানো হবে।’

নতুন জলাধারের প্রকৃত রহস্য সম্পর্কে নিশ্চিত হতে আরো গবেষণার প্রয়োজন বলে মত দিচ্ছেন বিভিন্ন দেশের জ্যোর্তিবিজ্ঞানীরা। এজন্য মঙ্গলগ্রহে এমন এক রোবট পাঠাতে হবে যা বরফ ছিদ্র করতে সক্ষম।

দেশরিভিউ/এস এস

SHARE